ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৭ ১৪২৭

কয়ছর আহমদ

প্রকাশিত: ২১:৪৮, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
আপডেট: ২২:০৮, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

মিছবাহুর রহমান; একজন পরিশ্রমী ও চৌকস রাজনীতিবিদ

মিছবাহুর রহমান, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক। একজন পরিশ্রমী ও চৌকস রাজনীতিবিদ। তিনি মৌলভীবাজার জেলা তথা এ অঞ্চলের অন্যতম দক্ষ সংগঠক হিসেবে পরিচিত। দক্ষ ক্রীড় সংগঠক, রাজনীতিবিদ, মাঠের নেতা, সমাজসেবক হিসেবে তার রয়েছে বেশ সুখ্যাতি।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার পরই অত্যন্ত বিচক্ষণতা ও দক্ষতার সাথে সাতটি উপজেলা সম্মেলন ও নতুন কমিটি গঠন করে দেন। এরমধ্যে কোনো কোনো উপজেলায় ২৫ বছর আবার কোনো কোনো উপজেলায় ১৫-১৬ বছর পর সম্মেলন হয়।

এছাড়া একজন দক্ষ ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে এরইমধ্যে তিনি বেশ সমাদৃত ও প্রশংসিত। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে প্রাণ ফিরে পায় মৌলভীবাজারের ক্রীড়াঙ্গণ। দীর্ঘদিনের বন্ধ্যাত্ব কাটিয়ে স্টেডিয়াম সরব হয়ে ওঠে ক্রিকেট, ফুটবলসহ বছরব্যাপী খেলাধুলার আয়োজনে। 

অত্যন্ত বিচক্ষণ, সাহসী, মেধাবী, সুবক্তা তথা দল অন্তপ্রাণ বিশ্বস্ত সংগঠক হিসেবে তিনি ইতোমধ্যে জেলা ছাত্রলীগ ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

১৯৭৫ সাল পরবর্তী কঠিন সময়ে যে কজন আওয়ামী পরিবারের স্কুল পড়ুয়া সাহসী কিশোর প্রকাশ্যে রাজনীতে আসেন মিছবাহুর রহমান তাদের অন্যতম। তিনি ছাত্র রাজনীতি থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে লালিত হন। রাজনৈতিক সংগঠক হিসেবে প্রতিটা মুহুর্তে নেতাকর্মীদের সফলভাবে ঐক্যবদ্ধ রাখার পাশাপাশি ধর্মীয়, সামাজিক, সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন সেচ্ছাসেবী সংগঠনের পাশে নিয়োজিত রেখেছেন নিজেকে। জিয়া ও এরশাদ সরকারের সময় রাজনৈতিক রোষানলে পড়ে তাকে মামলাসহ নানা অত্যাচারের মুখোমুখি হতে হয়েছে।

প্রারম্ভিক জীবন

মিছবাহুর রহমান ১৯৬২ সালে বর্তমান মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলার একাটুনা ইউনিয়েনের বড়কাপন গ্রামের ঐতিহ্যবাহী মুন্সি বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মখলিছুর রহমান।

কর্মজীবন

মিছবাহুর রহমান কর্মজীবনে একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন ব্যবসায়িক, ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি মৌলভীবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার বর্তমান সাধারণ সম্পাদক। তিনি টানা তিনবারের মতো এই দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগেও তিনি বেশ কয়েকবার মৌলভীবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী পরিষদে ছিলেন। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পাবার পর তিনি অনেকগুলো প্রথম বিভাগ লীগ সফলভবে সম্পন্ন করেন। এরমধ্যেই তিনি মৌলভীবাজার জেলা তথা সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় আলোচিত ‘বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট’ প্রায় একক প্রচেষ্ঠায় সফলভাবে সম্পন্ন করেন। মিছবাহুর রহমান সিলেট বিভাগীয় ফুটবল এসোসিয়েশনেরও সভাপতি হিসেবে দয়িত্ব পালন করেন। ক্রীড়া সংস্থায় থাকাকলীন অবস্থায় ক্রীড়াঙ্গনের সকলের কাছে কর্মদক্ষতার কারণে বেশ সুনাম ও খ্যাতি অর্জন করেন। তিনি কর্মজীবনে বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন।

​​​​​​​রাজনৈতিক জীবন

মিছবাহুর রহমান রাজনৈতিক জীবনে একজন সফল ব্যক্তিত্ব। আর রাজনৈতিক জীবনেও একজন কর্মঠ, সৎ ও নিষ্ঠাবান হিসেবে পরিচত। এক কথায় যাকে একজন রাজনৈতিক আইডল হিসেবে বলা যায়। স্কুলে থাকাকালীন সময় থেকে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িয়ে পড়েন। ১৯৭৭ সালে শ্রীমঙ্গল ভিক্টোরিয়া স্কুল ছাত্রলীগ সভাপতি নির্বাচিন হন। পরবর্তীতে তিনি মহকুমা ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৩ সালে তিনি মৌলভীবাজার মহকুমা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৮৪ সালে মৌলভীবাজার জেলা প্রতিষ্ঠা হবার পর জেলা ছাত্রলীগের প্রথম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তৎকালীন সামরিক শাষণের কঠোর অবস্থানেও তিনি ভয়-ভীতি উপেক্ষা করে আন্দোলনের মাঠে ছিলেন সামনের সারিতে। বহুবার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নির্মম হিংস্রতা ও অত্যাচার-নিপীড়নের শিকার হয়েছেন তিনি।

কর্মীবান্ধব-সংগঠক ও নেতা মিছবাহুর রহমান ১৯৯৩ সালে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিন হন। ছাত্রজীবন থেকে আন্দোলন-সংগ্রামে জড়িত থাকায় বিরোধীদল থাকার পরও এই সময়ে তিনি জেলার প্রতিটি উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড যুবলীগের কমিটি গঠন করে ভবিষ্যৎ আওয়ামীলীগের ভীত প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রলীগ, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করার পর এবং জেলায় আওয়ামী রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ একজন হিসেবে পুর্ণ দক্ষতার ছাপ রাখায় ২০০৬ সালে মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের দয়িত্ব নেন মিছবাহুর রহমান। এর আগে দুবার জেলা আওয়ামী লীগের সদস্যও ছিলেন তিনি।

২০১৭ সালের ২৮ অক্টোবর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পান বিচক্ষণ রাজনীতিবিদ ও মুজিব আদশের্র লড়াকু সৈনিক মিছবাহুর রহমান। মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা হিসেবে তিনি রাজনৈতিক পুর্ণ দক্ষতার ছাপ রাখছেন সংগঠনে।

পূর্বে জেলা ছাত্রলীগ ও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগান। ইতোমধ্যে মৌলভীবাজার জেলার সকল উপজেলা সম্মেলন সাফল্যের সাথে সম্পন্ন করেন মিছবাহুর রহমান।

তার দক্ষ নেতৃত্বে কারণে ১৫ বছর পর অনুষ্ঠিত হয় মৌলভীবাজার সদর, ১৫ বছর পর কমলগঞ্জ, ১৫ বছর পর কুলাউড়া, ১৪ বছর পর শ্রীমঙ্গল, ১৮ বছর পর জুড়ী এবং ২৫ বছর পর রাজনগর উপজেলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। মিছবাহুর রহমানের দিকনির্দেশনা ও নেতৃত্বে উপজেলা সাতটি উপজেলা আওয়ামী লীগ এখন আগের চেয়েওঅনেক সুসংগঠিত।

সমাজসেবামূলক কাজ

তিনি রাজনৈতিক কর্মব্যস্ততার মাঝেও বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজের সাথে জড়িত আছেন। স্কুল-কলেজ-শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ-মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সাথে তিনি জড়িত আছেন। বিভিন্ন দুর্যোগকালীন সময়ে তিনি নিজে ব্যক্তিগতভাবে এগিয়ে আসেন গরীব ও অসহায়দের সাহায্যার্তে। সংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি সমন্নয় করেন দুর্যোগকালীন সময়গুলো।

আইনিউজ/এইচকে

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়