ঢাকা, বুধবার   ১৮ মে ২০২২,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৯

ফিরোজ জামান

প্রকাশিত: ২১:২৩, ১০ এপ্রিল ২০২২
আপডেট: ২১:২৯, ১০ এপ্রিল ২০২২

যেভাবে তৈরি করবেন তেল-চিনি ও রান্নাবিহীন রোজার খাবার

ফিরোজ জামান

ফিরোজ জামান

রমযান মাস যতই সংযমের নির্দেশনা নিয়ে আসুক না কেন, খাবারের বেলায় কোনো না কোনোভাবে আমরা এ সংযম ধরে রাখতে পারি না। বিশেষত এ মাসেই সেহরী ও ইফতারে তেল, ভাজা পোড়া খাবার খাওয়া হয় বেশি। ন্যাচারোপ্যাথি মেথড লাইফস্টাইল অনুযায়ী রোজার মাসের খাবার-দাবার কেমন হওয়া উচিৎ এ নিয়ে শরীরচর্চা প্রশিক্ষক ও গবেষক ফিরোজ জামান নিজ ফেসবুক আইডিতে একটি পোস্ট করেছেন।

ন্যাচারোপ্যাথি মেথড অনুযায়ী খাবার তৈরীর নিয়মঃ

১/ইফতারের শুরুতেই আধা থেকে এক লিটার (বয়স ভেদে) পানি /লেবু পানি/আমার বাসায় বিলেম্বুর শরবত বানাই চিনি নয় গুড় ব্যবহার করতে হবে।  

২।দুটো খেজুর + দু-চার টুকরো পছন্দ মত ফল (দেশি ফল হলে খুব ভালো)।

এ পর্যন্ত ইফতারির প্রথম পর্ব শেষ তারপর মাগরিবের নামাজ আদায় করে মূল ইফতার খাওয়া হয়।

৩।কাঁচা ছোলা+গাজর+টোমেটো+শসা +ধনিয়াপাতা + পুদিনাপাতা +কাচামরিচ+আদা+ (আমার বাসায় এটুকু হয় কেউ চাইলে কাঁচাবাদাম,কাঠবাদাম,কাজুবাদাম, আরও কাঁচা যতকিছু দেওয়া যায় দিয়ে) একসাথে মিক্সড করে সালাদ বানিয়ে ইফতারের মূল খাবার শেষ।

অতঃপর তারাবির নামাজ আদায়।

৪।তারাবি শেষ করে আধা লিটার থেকে এক লিটার পানি (বয়স ভেদে)পান করতে হবে 

৫।পানি পানের আধা ঘণ্টা পরে মধ্য রাতের খাবার যেমন দই(টকদই হলে খুব ভালো) +চিড়া+দুধ+কলা (এটা আমার বাসার মেনু)কেউ চাইলে তেল ছারা জাও/খিচুড়ি /সেদ্ধ ছোলা+মুড়ি এসব খেতে পারেন (যে সময় যাই খান না কেন পেট খালি রেখে মানে ওয়ান থার্ড থিওরি ফলো করে খেতে হবে)।

৬।সেহরি খাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে উঠতে হবে এসময় আধা থেকে এক লিটার (বয়স বা শারীরিক অবস্থা ভেদে) পানি আগে পান করবেন তারপর ফ্রেশ হয়ে তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করে সেহরি খেতে বসবেন। 

৭।সেহরির সময় শুধুমাত্র রান্না করা খাবার খাওয়া হয় যেমন মিডিয়াম প্লেটে এক প্লেট ভাত+ এক বাটি মিক্সড সবজি+এক পিস মাছ/গুড়া মাছ/মুরগির গোস্ত /ডাল।
(তেল ছাড়া রান্না হলে খুব ভালো নতুবা মাখায় রান্না করবেন বাগারের রান্না নয় যা খাবেন খাওয়ার পর যেন অসস্তি বা অশান্তি না লাগে। খওয়া শেষে যেন মনে হয় আরও কিছু খেতে পারবো এমন অনুভূতি নিয়ে প্রতিবারের খাবার শেষ করতে হবে) 

উপরোক্ত নিয়মে প্রতিদিন চলে আমার বাসায়। বাচ্চাগুলো কখনও ভিন্ন কিছু খাওয়ার আবদার করেনা। তারাও রোজা রাখে। আমার ৯বছরের ছেলে ও ১১ বছরের মেয়ে। দইচিড়া তাদের প্রিয় খাবার।

শুধু মাত্র কিডনি রোগী ছাড়া উক্ত ফর্মুলায় কারো কোনো অসুবিধা হবে না উপকার ছাড়া। কিডনি রোগী শুধুমাত্র পানির পরিমাণ ও ছোলা বা বাদামের আইটেম বাদ বা কমিয়ে দিলে বাকিগুলোতে কোন অসুবিধা নেই। 

তেল ও চিনি বা রান্না বিহীন খাবারই হোক রোজার মাসের খাবার যা স্বাস্থের জন্য যেমন ভালো তেমন ইবাদতের জন্যও ভালো বা অনেক সময় পাওয়া যাবে, ইনশাআল্লাহ।

ফিরোজ জামান, শরীরচর্চা প্রশিক্ষক ও গবেষক, উদ্ভাবক, ন্যাচারোপ্যাথি মেথড

 

আইনিউজ ভিডিও

রোজার বাজারে ২ কেজি মাংসে ৪০০ গ্রাম কম দিলেন ব্যবসায়ী, ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান

নয় বছরের মেয়েটি কিভাবে নেভায় একের পর এক আগুন?

ঐতিহ্যবাহী আলী আমজাদ স্কুলের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা 

বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় দৌড়ে অন্ধ শিক্ষার্থীদের ক্ষিপ্রগতি দেখে সবাই মুগ্ধ

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়