ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৭ ১৪২৭

আইনিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:২৯, ১১ অক্টোবর ২০২০

‘কালো স্বর্ণ’

কৃত্রিম চুলকেন্দ্রিক সৌন্দর্য চেতনা এশিয়া বা আফ্রিকার চেয়ে ইউরোপ-আমেরিকাতে বেশি। ইউরোপের এমন একটি শহর পাওয়া যাবে না যেখানে একাধিক পরচুলা বিক্রির দোকান নেই। বহু মানুষ এই পরচুলার ব্যবসা করে সংসার চালাচ্ছেন। ইউরোপ-আমেরিকার বাজারে আসা এই বিপুল পরিমাণ চুল আসে কোথা থেকে, এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে সরেজমিন নেমেছিল সিএনএনের একদল সাংবাদিক। তাদের প্রতিবেদনে উঠে আসে কালো স্বর্ণ নামে খ্যাত চুলের বাণিজ্যের অন্ধকার দিক।

আর্লিংটনের বিপলিসড বিউটি সাপ্লাই নামের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিত ফ্রাঙ্কেশা ওয়াটকিন বলেন, ‘কৃষ্ণাঙ্গ নারীরা চুলের পেছনে অনেক অর্থ ব্যয় করে। এই মহামারীর সময়েও এর কমতি হয়নি।’ বিশেষজ্ঞদের মতে, মহামারীর সময়ে অন্য ব্যবসার মুনাফা নিম্নমুখী হলেও চুলের ব্যবসা আরও বেড়েছে। ২০১৮ সালে শুধু যুক্তরাষ্ট্রের বাজারেই দুই দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলারের চুল বিক্রি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের বাজারে মানুষের মাথার যে চুল পাওয়া যায় তার উৎস মূলত চীন। সিএনএনের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ইউরোপের বাজারের এই বিপুল পরিমাণ চুল আসে চীনের শিনজিয়াং অঞ্চল থেকে। ওই অঞ্চলের ডিটেনশন সেন্টারগুলোতে থাকা মানুষদের মাথা কামিয়ে চুলগুলো সংগ্রহ করা হয় বলেও দাবি করে সিএনএন।

গত সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন শিনজিয়াং থেকে আগত চুলের চালানের ওপর নজরদারি আরোপ করে। সেখান থেকে তারা দেখতে পান, শিনজিয়াংয়ের একটি নির্দিষ্ট এলাকা থেকেই চুল আসে। আর গত জুনেই ওই অঞ্চল থেকে আসা ১৩ টন চুল যার আনুমানিক মূল্য আট লাখ ডলারের বেশি, জব্দ করে যুক্তরাষ্ট্রের কাস্টমস কর্র্তৃপক্ষ। জব্দকৃত চুল যে দুটি কোম্পানি থেকে আসে সেগুলোর নাম লুপ কাউন্টি মেইশিন হেয়ার প্রোডাক্টস ও হেটিয়ান হাওলিন হেয়ার এক্সেসরিজ। সিএনএন এই দুটি কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

চলতি বছরের শুরু পর্যন্ত মেইশিন ও হেটিয়ানই ছিল চুল রপ্তানি করার মূল দুই কোম্পানি। এই দুই কোম্পানির চুল কিনত টেক্সাসভিত্তিক কোম্পানি আইঅ্যান্ডআই হেয়ার। এই কোম্পানিটির সবচেয়ে বেশি বিক্রীত পণ্যের নাম ইজেডব্রাইড। টেক্সাসের এই কোম্পানিটির সঙ্গে চুলের ব্যাপারে যোগাযোগ করে জানতে চাওয়া হলে এর কর্র্তৃপক্ষ জানায়, তারা জানতেন না যে চুলগুলো অমানবিকভাবে সংগ্রহ করে বিক্রি করা হচ্ছিল।

 

 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়