ঢাকা, রোববার   ২০ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৬ ১৪২৮

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৪:০৪, ২৬ মে ২০২১
আপডেট: ১৫:৩৯, ২৬ মে ২০২১

মৌলভীবাজারে জোড়া খুন: ফাহিমকে রিমান্ডের আবেদন

ফাহিম মুনতাসির

ফাহিম মুনতাসির

মৌলভীবাজারের চাঞ্চল্যকর জোড়া খুন মামলার আসামি ফাহিম মুনতাসিরকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গত ২২ মে (শনিবার) রাতে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থেকে তাকে আটক করা হয়।

মামলার বাদীর দাবি ঘটনার সাথে জড়িত ফাহিম মুনতাসিরের কাছে অতি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার পূর্ণ রহস্য উদঘাটন হবে।

মামলার এজাহারসূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৭ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ আলী শাবাব ও মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ কর্মী নাহিদ আহমদ মাহীকে দলীয় কোন্দলের জেরে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রাবাস এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

মাহী মৌলভীবাজার সদর উপজেলার দুর্লভপুর গ্রামের বিলাল আহমদের ছেলে। আর শাবাব শহরের পুরাতন হাসপাতাল রোডের আবু বকর সিদ্দিকীর ছেলে।

ঘটনার দুইদিন পর (৯ ডিসেম্বর ২০১৭) মোহাম্মদ আলী শাবাবের মা সেলিনা রহমান চৌধুরী বাদী হয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানায় মামলায় ১২জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৫-৬ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এরপর এজাহারভুক্ত ১২ আসামির মধ্যে পুলিশ ৪ জনকে গ্রেফতার করে এবং ৬ জন আদালতে আত্মসমর্পণ করলেও অন্যতম আসামি ফাহিম মুনতাসির ও তামিম হাসান পলাতক ছিল।

তদন্ত শেষে গত ১ আগস্ট ২০১৮ তারিখে পুলিশ আদালতে ১০ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দায়ের করে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ আসামি ফাহিম মুনতাসিরকে অভিযোগপত্র থেকে বাদ দেয়ায় ২০ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে বাদী আদালতে নারাজি পিটিশন দাখিল করেন। পরে আদালতের নির্দেশে মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দেয়া হয়। পিবিআই আসামি ফাহিম মুনতাসিরকে ঘটনার সাথে সম্পৃক্ততার প্রমাণ পায় এবং গত শনিবার (২২ মে) রাতে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থেকে তাকে আটক করে।

এ বিষয়ে মামলার বাদী ও নিহত শাবাবের মা সেলিনা রহমান চৌধুরী এক লিখিত বক্তব্যে জানান, আমরা সুবিচারের দাবি জানাচ্ছি রাষ্ট্রের কাছে। ফাহিম মুনতাসিরকে রিমান্ডে নিলে তার থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাবে। যা থেকে সহজে এই ঘটনা প্রমাণ হবে এবং আসামিদের শাস্তি নিশ্চিত হবে বলে মনে করি।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর পুলিশ সুপার মো. আবু ইউসুফ বলেন, চার্জশিট থেকে আসামিকে বাদ দেয়ায় মামলা বাদী আদালতে নারাজি দেয়ার পর মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। পরে তদন্ত করে উপযুক্ত তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে ফাহিম মুনতাসিরকে আটক করে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়েছে। এখনও শুনানির তারিখ নির্ধারণ করেননি আদালত। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেয়া যাবে।

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়