ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৪ ১৪২৮

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০০:২২, ৩১ মে ২০২১
আপডেট: ১১:০৩, ৩১ মে ২০২১

আইনিউজে সংবাদ প্রচারের পর মৌলভীবাজারে কোয়ারেন্টাইনে ৭১ জন

মৌলভীবাজার শহরের বড়কাপন এলাকায় তিনটি কলোনীতে লাল কাপড় টানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজার শহরের বড়কাপন এলাকায় তিনটি কলোনীতে লাল কাপড় টানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজারে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আসা ৭১ জনকে করোনা সন্দেহে কোয়ারাইটাইন করা হয়েছে। এদিকে মেয়র ফজলুর রহমানের উদ্যোগে শহরের বড়কাপন এলাকায় তিনটি কলোনীতে লাল কাপড় টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। দেশে করোনার সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চল চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে লোকজন আসায়  মৌলভীবাজারবাসীর মধ্যে নতুন করে করোনা আতংক দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, কোয়ারেন্টাইন করা ৭১ জনের সকলেই ফেরিওয়ালা; পাড়ায় পাড়ায়, গ্রামে গ্রামে প্লাস্টিক পণ্য বিক্রি করেন। আংশকা করা হচ্ছে তাঁরা ভারতীয় ধরণ বহন করছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, প্রত্যেকের করোনা টেস্ট করা হবে।

উল্লেখ্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে গত সপ্তাহে শ্রীমঙ্গলে আসেন ৩৪ জন নাগরিক। তাদের নমুনা পরীক্ষায় শুক্রবার ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা বলেন তাদের সাথে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে অনেকেই এসেছেন। এর মধ্যে মৌলভীবাজার সদরের বড়কাপন এলাকায় আছেন ৬৩ জন এবং চাঁদনীঘাট এলাকায় আছেন ৮ জন । তাদের এখনও কোন করোনা নমুনা পরিক্ষা করা হয়নি।

এই সংবাদ আই নিউজ ডট নিউজে প্রচারের পর অনুসন্ধান করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আসা ৭১ জনকে খুঁজে বের করা হয়। রোববার (৩০ মে) মৌলভীবাজার পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডে বড়কাপন এলাকায় তিনটি কলোনি ও চাঁদনীঘাট এলকার গুজারাই গ্রামের কলোনিতে লকডাউন করা হয়েছে।

মৌলভীবাজার শহরে পূর্ব সুলতানপুর এলাকার বাসিন্দা কাওছার আহমেদ বলেন, আজ রোববার (৩০ মে) দুপুরের দিকেও  চাঁপাইনবাবগঞ্জের ফেরিওয়াদের প্লাস্টিকের পণ্য ফেরি করতে দেখেছি। তারা ‘হরেক রকম পণ্য’ নামে প্লাস্টিক পণ্য বিক্রি করে। তারা যেভাবে বাসায় বাসায় পণ্য বিক্রয় করছে তাতে করোনা সংক্রমণ ভয়ানক আকার ধারণ করতে পারে। কারণ আমরা আই নিউজ ডট নিউজে দেখেছি শ্রীমঙ্গলে চাঁপাইনবাবগঞ্জের থেকে আসা ৩৪ জনের মধ্যে ১৩ জনের করোনা শানাক্ত হয়েছে। এখন আশংকা তাঁরা যদি ভারতীয় ধরন বহন করে থাকেন তাহলে সেটা মৌলভীবাজার ছড়িয়ে পড়বে। যা আতংকের এবং অত্যন্ত উদ্বেগজনক ।

এদিকে গুজারাইর স্থানীয় লোকজন জানান, সংসদ সদস্য নেছার আহমেদ বিষয়টি জানতে পেরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আসা লোকজনকে নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করতে ব্যবস্থা নেন। পরে ওই এলাকা লকডাউন করা হয় ।

পৌর মেয়র ফজলুর রহমান বলেন, শ্রীমঙ্গলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে মৌলভীবাজার মানুষ এসেছে সংবাদটি আই নিউজ ডট নিউজের মাধ্যমে জানতে পারি। সাথে সাথে তাদের চিহ্নিত করতে তৎপরতা শুরু করি। আজ জেলা প্রশাসন, সিভিল সার্জনের অফিস, মডেল থানা পুলিশ ও পৌরসভার যৌথ উদ্যোগে তাঁদের চিহ্নিত করে লকডাউন করা হয় ।

মেয়র বলেন, বিকেল চারটার দিকে বড়কাপন এলাকায় তিনটি কলোনিতে লাল পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে।

এ সময় মেয়র ফজলুর রহমানের সাথে ছিলেন পৌর কাউন্সিলর জালাল আহমদ, সৈয়দ সেলিম হক ও সালেহ্ আহমদ পাপ্পু। 

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা ডা. আবেদা বেগম বলেন, সোমবার সকাল ১০টার দিকে ৭১ জনের নুমনা সংগ্রাহ করা হবে। ফলাফল হাতে পেলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।করোনা পজিটিভ হলে ভারতীয় ধরণ শনাক্তে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)-এর সাথে যোগাযোগ করা হবে।

এ সংক্রান্ত আরও খবর : চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে শ্রীমঙ্গলে আসা ১৩ জনের করোনা শনাক্ত

আইনিউজ/ কেএইচশাওন

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়