ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৮

সিলেট প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১২:৪৯, ২২ নভেম্বর ২০২১

সিলেট বিভাগে চলছে পরিবহন ধর্মঘট, দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পাঁচ দফা দাবিতে সিলেট বিভাগে চলছে পরিবহন ধর্মঘট। সোমবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়েছে অনির্দিষ্টকালের এই পরিবহন ধর্মঘট। এমন পরিস্থিতিতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। 

রহিম উল্ল্যা নামে এক যাত্রী বলেন, বাস মালিক-শ্রমিকদের কাছে দেশের মানুষ জিম্মি হয়ে পড়েছে। কথায় কথায় তারা ধর্মঘট ডাকে।এর প্রভাব পড়ে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের ওপর।

 ব্যাংক কর্মকর্তা হোসেন আহমদ নামে এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, কিছু হলেই পরিবহন মালিক শ্রমিকরা ধর্মঘট ডেকে বসেন। আমাদের জিম্মি করে তারা নিজেদের দাবি আদায় করতে চান। এটা খুবই অনায্য।

সিলেট জেলা বাস-মিনিবাস কোচ-মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর রাজন বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে ২১ নভেম্বর পর্যন্ত সময় বেধে দিয়ে স্মারকলিপি দেয় সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের বিভাগীয় কমিটির নেতারা। বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে পাঁচ দফা দাবি আদায় হয়নি। এ কারণে সোমবার সকাল ৬টা থেকে সিলেটে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে এ ধর্মঘটে পরীক্ষার্থীদের গাড়ি চলতে কোনো বাধা নেই।

পরিবহন শ্রমিকদের দাবিগুলো হচ্ছে- সিলেট জেলা অটোটেম্পু, অটোরিকশা চালক শ্রমিক জোট (রেজি নং: ২০৯৭) এর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা ও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ঘোষিত কমিটি বাতিল করা এবং মনোনয়ন ফি বাবদ আদায় করা টাকা ফেরত দেওয়া; সিলেটের আঞ্চলিক শ্রম দফতরের উপ-পরিচালককে প্রত্যাহার, সিলেট জেলা বাস-মিনিবাস কোচ-মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজি নং: বি-১৪১৮) নেতাদের ওপর দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার, ট্রাফিক পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশের সব হয়রানি বন্ধ, মেয়াদোত্তীর্ণ শেরপুর, শেওলা, লামাকাজী, শাহপরাণ ও ফেঞ্চুগঞ্জ সেতু থেকে টোল আদায় বন্ধ এবং চৌহাট্টাসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে সব ধরনের গাড়ি পার্কের ব্যবস্থা করা।

চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি নগরের চৌহাট্টায় অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড উচ্ছেদ নিয়ে সিসিকের কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এই সংঘর্ষে সিসিক ও পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক মামলা দায়ের করা হয়। পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট ও কঠোর কর্মসূচির আল্টিমেটামের পরিপ্রেক্ষিতে পরিবহন শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে সিসিক মেয়রের একটি সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

ওই বৈঠকে পরিবহন শ্রমিক নেতাদের সিসিকের পাঁচ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া ও মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত হয়।

আইনিউজ/এসডিপি 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়