ঢাকা, শনিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৯ ১৪২৭

আব্দুর রব

প্রকাশিত: ২২:৩৩, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০
আপডেট: ১৬:৫৫, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাইক্কাবিলে হাজারো পদ্ম ছড়াচ্ছে রঙিন আভা

স্নিগ্ধতার রঙে যেনো একাকার প্রকৃতি। জলের ওপর ভেসে থাকা সবুজ পাতা ভেদ করে উঁকি দিচ্ছে হাজারো পদ্ম, ছড়াচ্ছে রঙিন আভা।

মাছ-পাখিদের অভয়াশ্রম হাইল হাওরের বাইক্কা বিল। পাখির দল বিলের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত পর্যন্ত ঝাঁক বেঁধে উড়ছে, ডাকাডাকি করছে। পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নির্জন বিলের প্রান্তর।

মনোমুগ্ধকর প্রকৃতির এ আয়োজনের দেখা মিলবে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের বাইক্কাবিলে। ওপরে শরতের নীল আকাশ নীচে শুভ্রতার প্রতীক পদ্মের সমাবেশ। এমন অপরূপ দৃশ্য তৃষ্ণা মেটাচ্ছে প্রকৃতিপ্রেমিদের।

বাইক্কা বিলে সারাবছরই পর্যটকরা ঘুরতে আসেন। শীতে হাজারো পরিযায়ী পাখির কলকাকলীতে মুগ্ধ হন প্রকৃতিপ্রেমী ও পাখিপ্রেমীরা। কিন্তু সারাবছরই দেশি পাখির কলকাকলীতে মুগ্ধ হন দর্শনার্থীরা।

এখনো শীতের আগমন না ঘটলেও শরতের এই সময়ে বালিহাঁস, পানকৌড়িসহ অসংখ্য দেশী পাখি ও বিলের পদ্ম ও শাপলা দেখতে বাইক্কাবিলে দেশের নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসছেন প্রকৃতিপ্রেমিরা। প্রকৃতিপ্রেমি থোঙাম সঞ্জিব বলেন- ‘ভোরবেলা ঘুম থেকে ওঠে এই পদ্মবিলে এসেছি। সত্যিই ভালো লাগছে, হাজারো পদ্মের মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখে। কেউ যদি ঘুমচোখে এখানে এসে হাজির হয়, নিমিষেই তার ঘুম চলে যাবে।’

মাছ-পাখিদের অভয়াশ্রম হাইল হাওরের বাইক্কা বিল। পাখির দল বিলের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত পর্যন্ত ঝাঁক বেঁধে উড়ছে, ডাকাডাকি করছে। পাখির কলকাকলিতে মুখরিত নির্জন বিলের প্রান্তর। বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় পাখি দর্শনার্থীদের আকর্ষণ করছে। এর সাথে হিজল,তমাল বনে বিলের স্থায়ী বাসিন্দা বেগুনি কালেম, বক, শালিক, চিল মুগ্ধ করছে পাখি প্রেমী দর্শনার্থীদের। পাশাপাশি বিলের পদ্ম, শাপলা ও বিভিন্ন ধরনের জলজ উদ্ভিদ দেখে মুগ্ধ হন পর্যটকরা।

বাইক্কাবিলে এসে ঝুমা দত্ত বলেন- ‘এক সাথে পদ্মের এতো সমাহার, অনেক ভালো লেগেছে। এর সাথে পাখিদের কলকাকলীতে মুগ্ধ হয়েছি।’

বাইক্কাবিলের দায়িত্বে নিয়োজিত ফুল মিয়া বলেন- ‘এমনিতেই বাইক্কাবিলে মানুষ ঘুরতে আসে। আবার পদ্মফুল দেখতে ঢাকা, চট্রগ্রাম, সিলেটসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর মানুষ ঘুরতে আসেন এবং পদ্মফুল দেখে রীতিমতো লাফ শুরু করেন।’

পাখি, মাছ ও জলজ উদ্ভিদ রক্ষায় ২০০৩ সালে ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে প্রায় আড়াইশ একর আয়তনের বাইক্কা বিলকে অভয়াশ্রম ঘোষণা করা হয়। পরিবেশগত জীববৈচিত্র রক্ষা করে পর্যটন বান্ধব এই স্থানটিকে নিরাপদ রাখতে পারলে সারা বছর এখানে পাখি থাকবে । এর সৌন্দর্য উপভোগ করবে দর্শনার্থীরা।

আইনিউজ/এইচকে

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়