ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

প্রকাশিত: ২২:৫৫, ১৬ অক্টোবর ২০২১
আপডেট: ২৩:৫২, ১৬ অক্টোবর ২০২১

দুর্গাপূজায় সাম্প্রদায়িক হামলা: সংক্ষুব্ধ নাগরিক লজ্জ্বিত, ব্যথিত ও ক্ষুব্ধ

সকলের কণ্ঠেই একই সুর- মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এই দেশ কোনো বিশেষ ধর্মের নয়। সবার সমান  অধিকার রয়েছে এই দেশে। সেই অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

সারাদেশে শারদীয় দুর্গাপূজায় ঘটে যাওয়া সাম্প্রদায়িক হামলা, পূজামণ্ডপে ও হিন্দুধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলার প্রতিবাদে সিলেটে  বিক্ষোভ করেছে সংক্ষুব্দ নাগরিক আন্দোলন। তাদের ব্যানারে লেখা ছিলো- 'দুর্গাপূজা উদযাপনকালে সংঘঠিত ঘটনায় আমরা ব্যথিত, লজ্জ্বিত ও ক্ষুব্ধ'।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) সিলেট নগরীর রিকাবীবাজার এলাকার কবি নজহরুল অডিটরিয়ামের সামনে এ বিক্ষোভ আয়োজিত হয়। বিক্ষোভে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানানো হয়। একইসাথে এসব হামলার সাথে জড়িত সকলে চিহ্নিত করে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিও জানানো হয়।

বক্তারা জানান, তারা লজ্জ্বিত, ক্ষুব্ধ। সকলের কণ্ঠেই একই সুর- মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এই দেশ কোনো বিশেষ ধর্মের নয়। সবার সমান  অধিকার রয়েছে এই দেশে। সেই অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

বিক্ষোভ সমাবেশের স্বাগত বক্তব্যে সংক্ষুব্দ নাগরিক আন্দোলন সিলেটের সমন্বয়ক আব্দুল করিম কিম বলেন, গত তিনদিন দেশে যে ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে তাতে এই দেশের একজন নাগরিক হিসেবে, একজন মুসলমান হিসেবে আমি লজ্জ্বিত ও ব্যথিত।

তিনি বলেন, দুর্গা পূজা হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। কিংন্তু এইবার তারা আনন্দের সাথে উৎসব করতে পারেননি। তারা ভয়ে ছিলেন। অনেকে আক্রান্ত হয়েছেন। মণ্ডপ ভাংচুর হয়েছে। দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জন্য আমরা একটি ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি করেছি। তাদের ধর্মচর্চার অধিকারকেও আমরা হরণ করছি। এই দায় রাষ্ট্রের, এই দায় আমারও।

ইসলাম ধর্ম কখনোই এ ধরণের হামলা-লুটপাট সমর্থন করে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, যারা এই তান্ডব চালিয়েছেন তারা পবিত্র ইসলাম ধর্মকেও অপমান করেছেন।

কিম বলেন, কোরআন শরীফ অবমাননার যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা আমাকেও ক্ষুব্দ করেছে। কিন্তু এই ঘটনার জের ধরে সারাদেশে যে তান্ডব চালানো হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের উপর হামলা চালানো হয়েছে তা এককথায় বর্বোরোচিত। কোনো সভ্য দেশে, কোনো বিবেকমান মানুষ এধরণের ঘটনা ঘটনাতে পারে না।

বিক্ষোভ সমাবেশ সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক আলিম শাহ। এতে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সভাপতি মিশফাক আহমদ মিশু, তথ্যচিত্র নির্মাতা নিরঞ্জন দে যাদু, লেখক-গবেষক শাহরিয়ার বিপ্লব, বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলা সমন্বয়ক উজ্জ্বল রায়, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী, সহ-সভাপতি মইনুদ্দিন মঞ্জ, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিলেট মহানগর শাখার তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এডভোকেট গোলাম সোবহান চৌধুরী, দুষ্কাল প্রতিরোধ আন্দোলনের সংগঠক দেবাশীষ দেবু, শিক্ষক ও সংগঠক প্রণবকান্তি দেব, লেখক সাংবাদিক শামস শামীম বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক মো. নাবিল এইচ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট নগরের সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাস প্রমুখ।

এছাড়াও সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন-  সমাজকর্মী ফকির জাকির হোসেন সোহেল, দরগা-ই-হযরত শাহজালাল (রহঃ) এর খাদেম মুজাহিদ হোসেন মুনিম, মদন মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের শিক্ষক উজ্জ্বল দাস, সংগঠক মাহবুব রাসেল,  শিক্ষক সুমন রায়, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের কর্মী ওয়াজিহ আহমেদ ও রুবেল মিয়া প্রমুখ।

আইনিউজ/এসডি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়