ঢাকা, রোববার   ১৮ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৫ ১৪২৮

প্রকাশিত: ১৭:১৩, ২৩ জুন ২০১৯
আপডেট: ১৮:২৩, ২৩ জুন ২০১৯

এক বছরেই শক্তি, ক্ষিপ্রতা জৌলুস হারিয়ে 'হীরা' এখন বৃদ্ধ মৃত্যুপথযাত্রী

রিপন দে : নাম “হীরা” সে ২০১৬ সালের ১৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম গ্রহন করে । জন্মের পর স্বাভাবিক ভাবেই বেড়ে উঠছিল সে । জন্মের ২ বছর পরেই শক্তি আর ক্ষিপ্রতায় পরিপূর্ণ হয়ে আফ্রিকান সিংহ হিসেবে উঙ্কার ছাড়তে শুরু করে হীরা । ২০১৮ সালের শুরুতে মাত্র ২ বছর বয়সেই সাফারি পার্কের একটি শক্ত লোহার গেট ভাঙার চেষ্টা করে সে। এই শক্তশালী হীরাকে সাফারি পার্ক থেকে ঢাকা জাতীয় চিড়িয়াখানায় আনার প্রায় ১ বছরের ভেতরে শক্তি, ক্ষিপ্রতা আর জৌলুস হারিয়ে এখন বৃদ্ধ। কিন্তু যেখানে একটি সিংহের গড় আয়ু প্রায় ২০ বছর সেখানে কিভাবে জন্মের ৩  বছরের মৃত্যুর পথে চিড়িয়াখাএই সিংহটি? প্রানিপ্রেমিরা বলছেন চিড়িয়াখার অবহেলা আর চিড়িয়াখানা কতৃপক্ষ বলছে জন্মগত ত্রুটিছিল । যদি বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের সাবেক প্রকল্প পরিচালক সফিউল আজম, জানিয়েছেন জাতীয় চিড়িয়াখানে দেওয়ার সময় সিংহটি সুস্থ ছিল। খোঁজ নিয়ে জানা যায় ,  ২০১৬ সালের ১৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে জন্ম গ্রহন করে ২০১৮ সালের ২ মে সাফারি পার্ক থেকে হীরা নামের এ সিংহটিসহ মোট ৪টি সিংহ  যার মধ্যে দুইটি পুরুষ আর দুইটি নারী সিংহ ও দুটি ভুল্লুক চিড়িয়াখানাকে দেয়া হয়। সিংহটি তখন পুরুপুরি সুস্থ ছিল এমনকি চিড়িয়াখানায় নিয়ে আসার ৩/৪ দিন আগে সিংহটি সাফারি পার্কের একটি গেট ভাঙার চেষ্টা করে পায়ে একটু ব্যাথাও পায়। যে সময় সিংহটিসহ ৬টি প্রাণীকে চিড়িয়াখানায় আনা হয় তখন ৪ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড তাদের সব পরীক্ষা করেন। চিড়িয়াখানায় আসার পর থেকেই সঠিক রক্ষনাবেক্ষনের অভাবে দিনে দিনে সে মৃত্যুর পথের যাত্রী হয়েছে এমনকি তার গায়ে মাছি ভনভন করা অবস্থায়ও চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ প্রদর্শন করা অব্যহত রাখে । অসুস্থ হীরার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে চিড়িয়াখা কতৃপক্ষ পরে বাধ্য হয় রবিবারে সিংহের খাচাকে দর্শনার্থীদের থেকে আড়াল করে রাখে । জাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটর ডাঃ এস এম নাজমুল ইসলাম জানান, আমাদের হীরা হচ্ছে আফ্রিকান সিংহ কিন্তু যে সিংহটির ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সেটা ইন্ডিয়ান সিংহ। আমাদের চিড়িয়াখানার এই সিংহটি জন্ম থেকেই অসুস্থ ছিল তার উপর গত আড়াই মাস যাবত সে এতটাই অসুস্থ যে স্বাভাবিক খাবার মুখে তুলছেনা । তার চিকিতসার জন্য আমরা দেশ বিদেশের বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিচ্ছি এবং প্রতিদিন মন্ত্রনালয়ে পত্র দিয়ে আপডেট দিচ্ছি । জাতীয় চিড়িয়াখানার কিউরেটর আরো জানান, গতকাল থেকে সুস্থ হয়ে উঠছে আশাকরি সে দ্রুত সুস্থ হয়ে যাবে । তবে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের সাবেক প্রকল্প পরিচালক সফিউল আজম, চিড়িয়াখান কর্তৃপক্ষ সিংহটি নেওয়ার সময় দেখেশুনে নিয়েছে । অসুস্থ প্রাণীকে চিড়িয়াখানায় দেব কেনো ? এ দিকে প্রানীপ্রেমিরা এর জন্য দায়ী করছেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষকে পিপল ফর এনিমেল ওয়েলফেরার ফাউন্ডেশন “প” এর প্রতিষ্টাতা চেয়ারম্যান স্থপতি রাকিবুল হক এমিল জানান , যেহেতু বারবার চিড়িখানার খাবার দাবার নিয়ে বিভিন্ন সময় প্রশ্ন উঠছে তাই আমাদের প্রশ্ন উঠা স্বাভাবিক তার উপর এটা মানতে হবে এখানে দ্বায়ীত্বশীলদের চরম অবহেলা ছিল । এর আগেও আমরা কুমিল্লাতে গত বছর একই ঘটনা দেখেছি । বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞ মনিরুল এইচ খান জানান, একটি সিংহের গড় আয়ু সাধারনত ১৫ থেকে ২০ বছর কিন্তু ৩/৪ বছরে একটি সিংহ স্বাভাবিক থাকলে এভাবে হওয়ার কথা না। তবে যেকোন সময় অসুস্থ হতে পারে সেটাও ঠিক। সঠিক পরিচর্যা আর চিকিৎসা নিশ্চিত করাকেই এই মুহুর্তে সব আগে প্রাধান্য দেওয়া উচিত ।
Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়