ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, মৌলভীবাজার

প্রকাশিত: ১৪:৩১, ২৯ অক্টোবর ২০২১
আপডেট: ১৩:৪৮, ৪ নভেম্বর ২০২১

রাষ্ট্রপতির ক্ষমা পেলেন মৌলভীবাজারের সাবেক ডিসি নাজিয়া শিরিন

মৌলভীবাজার ও নীলফামারীর সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) নাজিয়া শিরিন।

মৌলভীবাজার ও নীলফামারীর সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) নাজিয়া শিরিন।

বালুমহালের ইজারার টাকাসংক্রান্ত অভিযোগ পাওয়া যায় মৌলভীবাজার ও নীলফামারীর সাবেক জেলা প্রশাসক (ডিসি) নাজিয়া শিরিনের বিরুদ্ধে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এই তদন্ত করে এর সত্যতা পেলে তার বেতন বৃদ্ধি স্থগিত করা হয়। তবে তার এই দণ্ডাদেশ বাতিল করেছেন রাষ্ট্রপতি।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) গেজেট প্রকাশ করে নাজিয়া শিরিনের দণ্ডাদেশ বাতিলের তথ্য জানানো হয়েছে।

গেজেটের তথ্যানুসারে, তিনি নীলফামারীর জেলা প্রশাসক থাকাকালে জেলার ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী এলাকায় তিস্তা নদীর ওপর বালুমহাল ইজারা প্রদানের ক্ষেত্রে ইজারাগ্রহীতার চেক ব্যাংকে জমা না দিয়ে ইজারার টাকা পাওয়া গেছে বলে চুক্তি করেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা অনুযায়ী অসদাচরণ ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে গত বছর বিভাগীয় মামলা হয়। এরপর তাঁকে গত বছর ১৩ আগস্ট কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। গত বছর ৭ অক্টোবর নাজিয়ার ব্যক্তিগত শুনানিতে তাঁর মৌখিক ও লিখিত জবাব সন্তোষজনক না হওয়ায় বিভাগীয় মামলাটি তদন্তের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা চলতি বছর ৮ মার্চ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্ত প্রতিবেদনে নাজিয়া শিরিনের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ প্রমাণিত হয়। তবে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি বলে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

তাঁর বিরুদ্ধে অসদাচরণ প্রমাণিত হওয়ায় অভিযোগের গুরুত্ব ও সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে তাঁকে দুই বছরের জন্য বেতন বৃদ্ধি স্থগিত রাখার লঘুদণ্ড দেওয়া হয়। এই দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে নাজিয়া রাষ্ট্রপতির কাছে আপিল করেন। রাষ্ট্রপতি নাজিয়ার দণ্ডাদেশ বাতিল করে তাঁকে অভিযোগের দায় থেকে অব্যাহতি দেন।

ডিসি নাজিয়া শিরিন ২০তম বিসিএস ক্যাডার হিসেবে ২০০১ সালে যোগদেন ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে। প্রথম কর্মস্থল ছিলো ঢাকায়। এরপর ২০১৩ সালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে যোগ দেন। পরে দায়িত্ব চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে। সেখান থেকে ২০১৮ সালের ৯ আগস্ট ডিসি হিসেবে যোগ নীলফামারিতে। 

বদলী ও নিয়োগ সংক্রান্ত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে ২০১৯ সালের ১১ জুন এক আদেশে স্বাক্ষর করেন উপসচিব মোহাম্মদ শাহীন ইমরান। একই প্রজ্ঞাপনে আরো ১৮ জেলায় নতুন ডিসি নিয়োগ দেওয়া হয়। এসময় নাজিয়া শিরিন নীলফামারী থেকে বদলী হয়ে আসেন মৌলভীবাজারে জেলা প্রশাসক হিসেবে।

পরে ২০২০ সালের ২৫ জুন নয়টি জেলায় নতুন জেলা প্রশাসক (ডিসি) পদায়ন করা হয়েছে। সিনিয়র সহকারী সচিব শেখ রাসেল হাসান স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এই পদায়ন করা হয়। এতে মৌলভীবাজারের নতুন জেলা প্রশাসক হিসেবে পদায়ন করা হয় মীর নাহিদ আহসানকে। মীর নাহিদ আহসান এর আগে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা পদে ছিলেন। তিনি এখনও মৌলভীবাজারে দায়িত্বরত রয়েছেন। 

আইনিউজ/এসডি

বড়লেখায় বিএনপি-জামায়াত পরিবারে নৌকা দেওয়ায় বিক্ষোভ

মৌলভীবাজার পৌরসভায় চলছে ৫৫ কোটি টাকার কাজ, মার্চে শেষ হবে সেন্ট্রাল রোডের কাজ

৪০ লক্ষ টাকায় বিক্রি হলো একটি মাছ, রাতরাতি ধনী জেলে

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়