ঢাকা, শনিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৯ ১৪২৭

আইনিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০৮, ৪ অক্টোবর ২০২০
আপডেট: ১২:০৮, ৪ অক্টোবর ২০২০

অনলাইন ক্লাসে চিতাবাঘের হানা!

গ্রামে এমনিতে নেট দুর্বল। ঘরের ভেতর মোটেই পাওয়া যায় না। ওদিকে আবার অনলাইন ক্লাস। সমস্যার সমাধানে ভারতের দক্ষিণ গুজরাটের খাপতিয়া গ্রামের ১৯ বছর বয়সী দুই তরুণ বাড়ি থেকে একটু দূরে টিলার ওপরে উঠে ক্লাস করতে গিয়ে জীবন ঝুঁকির মুখে ফেলেন।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, দুই বন্ধুর একজন গোবিন্দ গমিত বাঘের আক্রমণের শিকার হন। তার বাঁহাতে কামড় বসানোর পাশাপাশি পা ধরে টেনে নিয়ে যায় বাঘটি।

গোবিন্দের এই অবস্থা দেখে বন্ধু ভাভিন গামিত গ্রামে দৌড়ে গিয়ে মানুষ ডেকে আনেন। কয়েকজন এগিয়ে আসলে বাঘটি গোবিন্দকে ফেলে পালিয়ে যায়।

কলেজ শিক্ষার্থী গোবিন্দ বলছিলেন, ‘পেছন থেকে আমার বাঁহাতে কামড় বসিয়ে দেয় চিতাবাঘটি। তারপর টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। হাতে সাতটি সেলাই পড়েছে।’

‘আমাদের গ্রামের আশপাশে চিতাবাঘের হানা নতুন কিছু নয়। তবে মানুষের ওপর আক্রমণ তেমন একটা হয় না। আমি পেছন ফিরে চিতাবাঘটির দিকে তাকাইনি। তাহলে হয়তো সেটি আমার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ত। আমার বন্ধুকে ইশারায় বলি, গ্রামে গিয়ে লোকজনদের ডাকতে। ও সেটাই করে। গ্রামের লোক হট্টগোল শুরু করার পর চিতাবাঘটি আমাকে ছেড়ে কাছের একটি ঝোপে লুকিয়ে পড়ে।’

স্থানীয় বনবিভাগের কর্মকর্তা র্টিনা গামিত ভারতীয় গণমাধ্যমটিকে বলেন, ‘চিতাবাঘটি ধরতে আমরা গ্রামে দুটি খাঁচা পেতেছি। এই গ্রাম বন দিয়ে ঘেরা। চিতাবাঘেরা প্রায়ই এখানে খাবারের সন্ধানে এসে লুকিয়ে থাকে।’

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়