ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২:৩৫, ২৩ অক্টোবর ২০২১

সারাদেশে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে গণঅনশন-গণঅবস্থান

সম্প্রতি দুর্গাপূজার সময় দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর হামলার প্রতিবাদে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গণঅনশন, গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ। এতে সংহতি জানিয়েছেন সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুও।

শনিবার সকাল ৬টা থেকে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘর চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে সংগঠনটি। এছাড়া চট্টগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে একযোগে পালিত হচ্ছে এই কর্মসূচি। বেলা ১২টা পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে।

শাহবাগে সকাল ৭টায় এই কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে উপস্থিত হন সাবেক তথ্যমন্ত্রী ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের নেতা হাসানুল হক ইনু। এ সময় বলেন, ‘সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ধর্মান্ধ, জঙ্গি ও সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পিত ছিল। হামলাকারীরা হিন্দু-মুসলিম সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগাতে চেয়েছিল। বাংলাদেশের মুসলিম সমাজ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হস্তক্ষেপে দাঙ্গা লাগানো সম্ভব হয়নি।’ কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করছেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নিন্দ চন্দ্র ভৌমিক।

এদিকে চট্টগ্রাম নগরীর আন্দরকিল্লা মোড়ে সকাল ৬টা থেকে শুরু হওয়া কর্মসূচিতে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ছাড়াও হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন সংগঠন অংশ নিয়েছে। এই কর্মসূচিকে ঘিরে ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতি নিয়েছে ইসকন। হিন্দুদের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে ইসকনের নানা বিষয়ে বিরোধ থাকলেও বৃহত্তর স্বার্থে তারা এক কাতারে শামিল হচ্ছে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘কুমিল্লার একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারাদেশে যেভাবে সাম্প্রদায়িক হামলা হয়েছে, তা কোনোভাবে মেনে নেওয়া যায় না। হিন্দুরা দেশের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে বাঁচতে চায় না। তারা বাকস্বাধীনতা ও নিজেদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান নির্বিঘ্নে পালন করতে চায়। একটি চক্র দেশকে অস্থিতিশীল করার জন্য কুমিল্লার ঘটনা ঘটিয়েছে। সরকারকে দ্রুত এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীকে আইনের আওতায় আনতে হবে।’

বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নোয়াখালী জেলা শাখার উদ্যোগে বেগমগঞ্জের চৌমুহনী ব্যাংক রোডের শ্রী শ্রী রাধামাধব জিউর মন্দির প্রাঙ্গণে শনিবার সকাল ৬টা থেকে গণঅনশন কর্মসূচি শুরু হয়। চলবে বেলা ১২টা পর্যন্ত। বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নোয়াখালী জেলা শাখা সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট বিনয় কিশোর রায় জানান, ১২টার পর গণঅনশন শেষে চৌমুহনীতে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করবেন তারা।

এছাড়া সিলেট, সিরাজগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে গণঅনশন, গণঅবস্থান ও বিক্ষোভের খবর পাওয়া গেছে।

আইনিউজ/এসডি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়