ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জানুয়ারি ২০২২,   মাঘ ৭ ১৪২৮

তথ্য প্রযুক্তি ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৫৮, ২৬ নভেম্বর ২০২১

প্রাইভেসি নিয়ে ফেসবুকে ছড়ানো পোস্টটি কতটুকু সত্য?

সম্প্রতি ফেসবুক-সংক্রান্ত একটি পোস্ট বেশ ভাইরাল হয়েছে। তরুণ-তরুণী থেকে শুরু করে বড়রাও কপি-পেস্ট করে পোস্ট করছেন। আর যিনি লেখাটি পড়ছেন তাদের মধ্যে অধিকাংশই বিষয়টি যাচাই বাছাই না করেই নিজের টাইমলাইনে কপি করে পেস্ট করে দিচ্ছেন।

পোস্টটিতে বলা হয়েছে,

“আগামীকাল থেকে নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়ম শুরু হবে যেখানে তারা আপনার ছবি ব্যবহার করতে পারবে। ভুলে যাবেন না, আজ শেষ দিন! তাই একটি কাজ করে রাখুন। এটি আপনার  বিরুদ্ধে মামলায় ব্যবহার করা যেতে পারে; আপনি যা কিছু পোস্ট করেছেন- এমনকি মেসেজ যা মুছে ফেলা হয়েছে। এতে কোনো খরচ নেই শুধু কপি করে পোস্ট করুন, পরে আফসোস করার চেয়ে ভালো হবে। 

ইউসিসি আইনের অধীন ১-২০৭, ১-৩০৮_আমি আমার অধিকার সংরক্ষণ আরোপ করছি...আমি ফেসবুক/মেটা বা অন্য কোনো ফেসবুক/মেটা সম্পর্কিত ব্যক্তিকে আমার ছবি, তথ্য, বার্তা বা বার্তা ব্যবহার করার অনুমতি দিচ্ছি না, অতীতে এবং ভবিষ্যতে কোনো সময়েই। 

এই পোস্টটি কপি করে আপনার নিজের পেজে পোস্ট করে রাখুন এবং ঘোষণা দিন যে, আপনি ফেসবুক/মেটাকে তাদের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা আমার তথ্য অন্য কোথাও শেয়ার করার অনুমতি দিচ্ছি না। ছবি, বর্তমান বা অতীত, বন্ধুবান্ধব, ফোন নম্বর ইমেইল অ্যাড্রেস, ব্যক্তিগত কোনো তথ্য বা পোস্ট এ সবের কোনো কিছুই আমার লিখিত অনুমতি ছাড়া ভিন্নরূপে ব্যবহার করা যাবে না।”

এরকম পোস্ট দেখে অনেকেই ঘাবড়ে গিয়ে কপি-পেস্ট করে নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করছেন। এতে করে এই পোস্ট ছড়াচ্ছে মারাত্মক আকারে। কিন্তু এই পোস্টটির সত্যতা কতটুকু, তার প্রশ্ন থেকেই যায়। 

মজার কথা হলো যে, সতর্কতামূলক এই পোস্টটি আসলে সম্পূর্ণ গুজব। বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্যই এটি ফেসবুকে ছড়ানো হয়েছে। 

এটি যে সম্পূর্ণ ভুয়া পোস্ট তা নিশ্চিত করেছে ফ্যাক্ট চেকিং ওয়েবসাইট রিউমার্স স্ক্যানার।

ফেসবুকের কোম্পানির নাম পরিবর্তন করে মেটা রাখলেও তথ্য নীতি এবং পরিষেবার শর্তাবলী অপরিবর্তিত থাকবে বলে স্পষ্ট করে উল্লেখ করে দিয়েছে সংস্থাটি। ফেসবুক কোনো নীতিমালা গ্রহণ বা পরিবর্তন করলে তা আটকাতে ব্যক্তিগত কোনো পোস্ট কোনো কাজে আসে না।

প্রাইভেসি বা ব্যক্তিগত গোপনীয়তার নীতি-সংক্রান্ত বিষয়ে ফেসবুক জানিয়েছে, ফেসবুকে দেওয়া পোস্ট ওই ব্যবহারকারীর মেধা-সম্পত্তি। তবে, যখন কেউ ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট তৈরি করেন, তখনই প্রাইভেসি সেটিংসের ওপর ভিত্তি করে কর্তৃপক্ষকে বেশ কিছু বিষয়ে সম্মতি দিয়ে দিতে হয়। ফলে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ প্রত্যেকের ব্যক্তিগত যেকোনো পোস্টে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে পারে।

সুতরাং ভুয়া পোস্টটি ভুলেও বিশ্বাস করবেন না এবং শেয়ার বা পোস্ট করে অন্যকেও বিভ্রান্তিতে ফেলবেন না। এমনটাই পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

আইনিউজ/এসডিপি 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়