ঢাকা, রোববার   ১১ এপ্রিল ২০২১,   চৈত্র ২৮ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:০৯, ২২ ডিসেম্বর ২০২০
আপডেট: ১৪:৩৯, ২২ ডিসেম্বর ২০২০

হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডায়ও ক্লাস করছে এই শিশুরা!

তাপমাত্রা মাইনাস ৫০ ডিগ্রী, তবু দলবেঁধে স্কুলের ক্লাসে যোগ দিচ্ছেন শিশুরা। এ স্কুলটিকে বলা হয় পৃথিবীর শীতলতম স্কুল। বলছিলাম পৃথিবীড় শীতল স্থান সাইবেরিয়ার কথা।

সাইবেরিয়ার ওইমায়াকন শহরের ইয়াকুতিয়ায় একটি স্কুলে তীব্র ঠাণ্ডার মাঝেও শিশুরা স্কুলে আসে। তবে তাপমাত্রা যদি ৫২ ডিগ্রির নিচে চলে গেলে তখন ৭-১০ বছর পড়ুয়া বা তার কমবয়সিদের জন্য ক্লাস বন্ধ থাকে। তাপমাত্রা ৫২ ডিগ্রির বেশি থাকলেও যদি তুষারপাত ও প্রচণ্ড হাওয়া থাকে তাহলেও অবশ্য স্কুলে আসতে হয় না।

এটি শুধু স্কুল নয়, পোস্ট অফিস এবং ব্যাঙ্কের মতো কিছু প্রাথমিক সুবিধাও সেখানে আছে। যেখানে প্রচণ্ড ঠান্ডায় হাতে গ্লাভস না পরলে তুষারপাতের সমস্যায় আঙুলের ক্ষতি হতে পারে। 

একই সমস্যা দেখা যায় ইয়াকুতিয়াতেও। মাইনাস ৫০ ডিগ্রি তাপমাত্রায় হাইপোথার্মিয়ার ঝুঁকিও থাকে। দ্রুত শরীরের তাপমাত্রা নামতে শুরু করে। এর ফলে শরীরে নানা জটিলতা দেখা যায়। মৃত্যুর আশঙ্কাও থাকে।

পরিবেশের কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেই সেখানে প্রতিদিন স্কুলে আসতে হয় শিক্ষার্থীদের। করোনা মহামারির মধ্যেও স্কুল বন্ধ থাকেনি। তবে স্কুলে আসা শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষক এবং অন্যান্য কর্মীদের নিয়মিত তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হয়েছে।

সূত্র: জি-নিউজ। 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়