ঢাকা, শুক্রবার   ২২ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৬ ১৪২৮

জুবেদ আহমেদ

প্রকাশিত: ০১:১২, ৫ মে ২০২০
আপডেট: ০১:৩৬, ৫ মে ২০২০

প্রেমের নগরী ভেনিস

প্রেমের নগরী,সাহিত্যের নগরী,দ্বীপের নগরী,রঙ-বেরঙের কারুকার্যের নগরী কিংবা ডিঙি নৌকার নগরী যে নামেই ডাকেন, রূপেগুণে অনন্য ভেনিস পৃথিবীর অন্য সব নগর থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন।শিল্প সাহিত্য,ইতিহাস-ঐতিহ্য আর পানির উপর ভাসমান নান্দনিক প্রাসাদগুলো যে কারও হৃদয়ে দোলা দেবে।ভেনিস নগরী ইতালির রাজধানী রোম থেকে প্রায় ৫২৬ কিলোমিটারের দূরে অবস্থিত।শহরটি মূলত কতগুলো দ্বীপের সমষ্টি।শহরের এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেতে যে বাহন ব্যবহার করা হয়,তা হলো ছোট ছোট ডিঙি নৌকা। পাশাপাশি স্পিড বোটও এখানে দেখা যায় নিয়মিত।সবচেয়ে আকর্ষণীয় জলযান হলো 'গণ্ডুলা'।দৃষ্টিনন্দন আর শৈল্পিক কারুকায এই জলযানের মূল বৈশিষ্ট্য।

নতুন দম্পতির জন্য এই নগরী অনেকটাই স্বর্গস্বরূপ।হানিমুনের জন্য বিখ্যাত জায়গা হিসেবে ইতালির ভেনিস শহরটি পৃথিবীর সর্বমহলে সমাদৃত।পুরো ভেনিসজুড়ে ছড়িয়ে আছে অসংখ্য খাল।একেক স্থানে চমৎকার সব সেতু দিয়ে খালের দুইপাশ সংযুক্ত করা।সবচেয়ে আকর্ষণীয় সেতুটি গ্র‍্যান্ড ক্যানেলের উপর যা,রিয়ালটো ব্রিজ নামে পরিচিত।সেতুর অপূর্ব কারুকাজ যে কাউকে মুগ্ধ করবে।

প্রতিবছর এখানে মুখোশের কার্নিভাল অনুষ্ঠিত হয়।পৃথিবীর সবচেয়ে অদ্ভুত মুখোশগুলো এ শহরেই পাওয়া যায়।ভেনিসের লিডো দ্বীপকে সোনালী দ্বীপ বলা হয়ে থাকে।এ দ্বীপের সমুদ্র সৈকতে সূর্যাস্তের দৃশ্য উপভোগ করার জন্য প্রচুর পর্যটক আসেন।ভূমধ্যসাগরের নানারকম সামুদ্রিক মাছ দিয়ে তৈরি মুখরোচর খাবার ভেনিসের আরও একটি প্রধান বৈশিষ্ট্য।ভাসমান এ শহরটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কারণে এটাকে সকলে রোমান্টিক শহর বলে আখ্যায়িত করেছেন।এখানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৫০ হাজার পর্যটকের সমাগম ঘটে।

সারা বছরই পর্যটকদের ভীড়ে মুখরিত থাকে লিওনার্দো দা ভিঞ্চির দেশ ইতালির এই শহরটি।

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়