ঢাকা, শনিবার   ২৪ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ৯ ১৪২৮

নূরুর রহমান

প্রকাশিত: ২০:০১, ১৬ মে ২০২০
আপডেট: ২০:১০, ১৬ মে ২০২০

বানফে সড়ক জুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে ভাল্লুক

বানফে সড়ক জুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে ভাল্লুক। ছবি : সংগৃহীত

বানফে সড়ক জুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে ভাল্লুক। ছবি : সংগৃহীত

বানফে সড়ক জুড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে ভাল্লুক। কারো মুখে সালমন-ফিশ। অবাধে বিচরণ করছে শিংওয়ালা হরিণ।

পৃথিবীর এই ক্রান্তিকালে মানুষ হয়েছে গৃহবন্দি। পৃথিবীর সব অপরূপ দর্শনীয় জায়গাগুলোতে এখন বিচরণ করছে পশু পাখি। পৃথিবীটা একেবারে বদলে গেছে।

বয়স হয়েছে একটু একটু করে নিজের ভাষা ভুলতে শুরু করেছি। করোনা আরো ভুলিয়ে দিচ্ছে সব কিছু। থমকে দাঁড়িয়ে গেছে পৃথিবীটা। কানাডার পশ্চিমাঞ্চলে আলবার্টা প্রদেশের ক্যালগারি শহরে বাচ্চাদের নিয়ে বাস করতাম। এখন আর তেমন সেখানে থাকিনা, কিন্তু বাচ্চারা থাকে। তাই ছুটে ছুটে যেতে হয়।

সালমন ফিশ মুখে ভাল্লুক। ছবি : সংগৃহীত

বানফ ন্যাশনাল পার্কে বহুবার যাওয়া হয়েছে আমাদের। ক্যালগারিতে থাকলে সামারে কয়েকবার যাওয়া হয়। অগ্রজ বন্ধু আহাদভাই, দিলশাদ ভাবিরা একাধিকবার গিয়েছেন বানফ ন্যাশনাল পার্কে। সে সব দিনের কথা মনে হলে স্মৃতিকাতর হয়ে পড়ে মন। পথে পথে হৈ হুল্লুড়, ম্যাকডোনাল্ডসে লাঞ্চ, স্টারবুকসে প্রিয় কফি, এখন কেবলি স্মৃতি। আর কি কখনো কবে বানফে যাওয়া হবে।

বানফ কানাডার আলবার্টা প্রদেশের একটি রিসোর্ট শহর। বানফ ন্যাশনাল পার্কের ভেতরেই এর অবস্থান। আলবার্টার রাজধানী এডমন্টন থেকে বানফের দূরত্ব ২৯৯ কিলোমিটার আর আলবার্টার প্রধান শহর ক্যালগারি থেকে বানফের দূরত্ব ১২০ কিলোমিটার। প্রকৃতির অফুরন্ত সৌন্দর্যের লীলা নিকেতন এই বানফ ন্যাশনাল পার্ক আর বানফ শহর। বানফ ন্যাশনাল পার্ক রকি মাউন্টেন রেঞ্জ বা রকিজ এর একটি এলাকা। রকি মাউন্টেন রেঞ্জ উত্তর পশ্চম আমেরিকায় অবস্থিত, যা কানাডার ব্রিটিশ কলম্বিয়ার উত্তর দিকে থেকে শুরু করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ মেক্সিকো অঙ্গরাজ্য পর্যন্ত প্রায় ৩ হাজার কিলোমিটার জুড়ে এর বিস্তার। মাউন্ট রাউন্ডল আর মাউন্ট ক্যাসকেডর মতো আকাশ ছোঁয়া গিরিশৃঙ্গগুলি রকি পর্বত মালারই অংশ।

বানফ শহরের বুক চিরে বানফ এভিনিউর দুই পাশে গড়ে উঠেছে দোকানপাট, রেস্তোরা, আর দুর্গের মতো দেখতে হোটেলগুলো। বানফ শহরের চারপাশে প্রায় ৬ হাজার ৫০০ স্কয়ার কিলোমিটার নিয়ে বানফ ন্যাশনাল পার্ক।

পার্কে মোটা লোমওয়ালা এবং মোটা শিংওয়ালা হরিণ বা এলক, মাউন্টেন গোট এবং ছাইরঙা গ্রিজলি ভালুকের বাস।

বানফ ন্যাশনাল পার্কে আছে পাঁচটি নয়নাভিরাম লেক। লেক মিনেওয়াঙ্কা, পেটু লেক, লেক লুইস, মরেইন লেক ও ভার্মিলিয়ন লেক। বছরে প্রায় ৫ মিলিয়ন পর্যটক বানফ ন্যাশনাল পার্কে বেড়াতে আসেন। লেক লুইসের সৌন্দর্য অমরাবতীর মতোই। লেকের পারে দাঁড়িয়ে একবার পাহাড়ের দিকে তাকালে দৃষ্টি আর ফেরানো যায় না। প্রকৃতি মনের মাধুরী মিশিয়ে স্বর্গ গড়ে রেখেছে এখানে।

লেক লুইসের কোল ঘেঁষে দাঁড়িয়ে আছে বিখ্যাত ফেয়ারমন্ত সাতু লেক লুইস হোটেল। লেক লুইস-এ রাত্রি যাপন করতে চাইলে অন্তত এক বছর আগে বুকিং দিয়ে রাখতে হয়। ফেয়ারমন্ত ছাড়াও বানফ শহরে রয়েছে অনেকগুলো সুন্দর আরামদায়ক হোটেল। বানফ শহরের কেন্দ্রস্থলে রয়েছে অনেকগুলো বিশ্ব মানের ক্যাফে, আমি বরাবরই এভেলিন ক্যাফেতে গিয়েছি, তাদের আমেরিকানো ব্লেন্ড তুলনাহীন। এমনকি লেক লুইসের কোলঘেঁষা ফেয়ারমন্ত সাতুতেও রয়েছে পর্যটকদের জন্য একটি বড় ক্যাফে। বানফের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তা লিখে বর্ণনা করা সত্যিই কঠিন।

এইচকে/ আই নিউজ

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়