ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১,   ফাল্গুন ১৩ ১৪২৭

অনিক ভট্টচার্য্য

প্রকাশিত: ১৬:০৩, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১

দেখে এলাম সবচেয়ে উঁচু বাকলাই ঝর্না

৩৮০ফুট উঁচু বাকলাই জলপ্রপাত ডাউন স্ট্রিম

৩৮০ফুট উঁচু বাকলাই জলপ্রপাত ডাউন স্ট্রিম

বাংলাদেশের সবচেয়ে উঁচু ঝর্নার কথা বললে বলতে হবে বাকলাই ঝর্নার কথা। যার উচ্চতা ৩৮০ফুট। শৈল্পিক রাজকীয়তা আর ভয়ংকর রাস্তা, বনবাদাড়ে ঘেরা এই বাকলাই ঝর্না।

কেওকারাডং থেকে তাজিংডং এর পথে সবচেয়ে পরিচিত গ্রাম বাকলাই। যেখানে আসলে উপভোগ করতে পারবেন প্রায় ৬ঘন্টার ট্রেইল ম্যারাথন ট্রেক।

ভ্রমণপ্রিয় মানুষদের কাছে বহু বছর ধরে সুপরিচিত আশ্রয় ক্যাম্পিং এই বাকলাই। এখানে আছে আর্মি ক্যাম্প যা অভিযাত্রীদের বাড়তি নিরাপত্তা নিশ্চিত করে।

জুমঘরে যেন শান্তি, বাকলাই ভোরে যাওয়ার আগে পূর্ব প্রস্তুতি 

বান্দরবন জেলার থানচি উপজেলার নাইটিং মৌজার বাকলাই গ্রামেই নয়নাভিরাম এবং অনিন্দ সুন্দর এই বাকলাই ঝর্ণা অবস্তিত। মজার বিষয় হচ্ছে এই ঝর্নার সৌন্দর্য দেখতে হলে আপনাকে হাতে ৫-৭ দিন সময় নিয়ে যেতে হবে। আপনার পরিশ্রম ক্ষমতার উপর নির্ভর করবে আপনি বাকলাই ঝর্নার সৌন্দর্য কতোটা উপভোগ করতে পারবেন।

সেখানে যাওয়ার রাস্তা আছে অনেক। কিন্তু যে পথেই যান হাঁটা ছাড়া গতি নেই।  বাকলাই এর সবচেয়ে বড় উত্তেজনা হল যাওয়ার রাস্তা। কারণ রাস্তা খুবই সুন্দর- একবার পানিপথ আবার পাহাড়, আবার পানি পথ আবারো পাহাড় এইভাবেই গিয়ে পৌছাতে হয় বাকলাই ঝর্নার দেশে।

ভোর ৬টায় রওনা দেয়ার আগে নাস্তায় লাল জুম চাল আর ডিম ভোনা। ডিম দেখে অনেকেই হাসতে পারেন, কিন্তু এই এলাকায় মাংস আর ডিম পাওয়া দুস্কর, আমাদের গাইড ডিম এনেছে ১ঘন্টা হেঁটে গিয়ে! 

প্রথমে বান্দরবন আসতে হবে। রাজধানী শহর ঢাকা থেকে বিভিন্নভাবে বান্দরবন আসা যায়। বাসযোগে সরাসরিভাবে আসা যায়। তবে ভেঙে আসলে বাস, ট্রেন, প্লেন পছন্দসই যেকোন মাধ্যম বেছে নেওয়া যাবে।

যাবেন কীভাবে?

ঢাকা টু বান্দরবান রুটে ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে এস. আলম, সৌদিয়া, ইউনিক, হানিফ, শ্যামলি, সেন্টমার্টিন পরিবহন, ডলফিন ইত্যাদি পরিবহনের বাস বান্দরবনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এসি ও ননএসি জনপ্রতি এসব বাসের ভাড়া ৫৫০ থেকে ১৫০০ টাকা। অথবা ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম এসে তারপর চট্রগ্রামের বিআরটিসি টার্মিনাল বা দামপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে ১০০-৩০০ টাকায় বাস ভাড়ায় বান্দরবন আসা যায়। চট্রগ্রাম থেকে প্রাইভেট কারে ২৫০০-৩৫০০ টাকায় বান্দরবন যাওয়া যায়।

ঢাকা থেকে চট্রগ্রাম গামী সোনার বাংলা, সুবর্ণ এক্সপ্রেস, তূর্ণা নিশিতা, মহানগর প্রভাতি কিংবা মহানগর গোধূলি ট্রেনে করে চট্রগ্রাম আসা যায়। শ্রেণী ভেদে ট্রেন ভাড়া ৩৫০ থেকে ১৫০০ টাকা। চটগ্রাম এসে উপরে নিয়মে বান্দরবান যেতে হবে।

অবশেষে পৌঁছে গেলাম বাকলাই। পাহাড়ের মাঝখানে এক বিশাল দানব যেন এই বাকলাই

বাংলাদেশ বিমান, জিএমজি এয়ার লাইনস, ইউনাইটেড এয়ার ওয়েজসহ বেশকিছু বিমান ঢাকা থেকে সরাসরি চট্রগ্রাম ফ্লাইট পরিচালনা করে থাকে। আকাশপথে চট্রগ্রাম এসে সড়ক পথে উপরে উল্লেখিত উপায়ে বান্দরবান যেতে হবে।

বান্দরবান থেকে বাস করে রুমা সদর উপজেলা যাওয়া যায়। প্রতি এক ঘণ্টা পরপর একটি করে বাস বান্দরবান থেকে রুমা বাজারের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। সেখান থেকে পরবর্তী গন্তব্য বগা হ্রদ। বগা হ্রদে দুইভাবে পৌঁছানো যায়। ঝিরিপথে হেঁটে বা চান্দের গাড়িযোগে।

আইনিউজ/এইচএ

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়