ঢাকা, শনিবার   ২৪ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ৯ ১৪২৮

মহিদুর রহমান

প্রকাশিত: ১৯:২৪, ২৭ জুন ২০২১
আপডেট: ২০:২৪, ২৭ জুন ২০২১

শৈশব অলাপ: শিশুসাহিত্যে উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরী

বিকেলটা ছিল আষাঢ়ে কিন্তু আলাপটা আষাঢ়ে ছিল না। ঘড়ির কাঁটায় পাঁচটা বাজবার খানিক আগেই একপশলা বৃষ্টি নামলো শহরের পাড়ায় পাড়ায়। ভিজে গেল রাস্তা ঘাট। কোনো কোনো গলিতে জমে গেলো জল। তারপর বৃষ্টি একটু বিরতিতে যেতেই শিল্পী-সাহিত্যিক-কবি-সাংবাদিক-শিক্ষক-শিক্ষানুরাগী-সাহিত্যানুরাগী অনেকেই ‘শৈশব আলাপ’এ যুক্ত হলেন মৌলভীবাজার পাবলিক লাইব্রেরিতে।

উন্নয়ন গবেষক ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন মাসুদ নির্ধিারিত সময়ের পাঁচ মিনিট আগেই এসেছিলেন। তারপর শিশু-কিশোর পত্রিকা শৈশবের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও কবি মায়া ওয়াহেদ আসলেন স্মিত হাস্যে। ছড়াকার-সাংবাদিক-কবি আবদুল হামিদ মাহবুব, সাহিত্য-সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষক মো. সেলিম আহমদও আসলেন। আর পিটিআই ইনস্ট্রাক্টর ও শৈশবের বিভাগীয় সম্পাদক আছমা বেগমের সভাপতিত্বে এই চারজনই অলংকৃত করলেন অতিথির চেয়ার।

ততক্ষণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দর্শকশ্রোতার উপস্থিতিতে বলতে গেলে হাউজফুল! কয়েকজন মা এলেন মেয়েকে নিয়ে কয়েকজন বাবাও আসলেন বাবুকে নিয়ে। একটা সাহিত্যবান্ধব আবহ তৈরি হলো পুরো আলাপ মঞ্চে।

শিশুসাহিত্যে উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরী প্রসঙ্গে বক্তারা আলোকপাত করলেন নানা আঙ্গিকে। কোনো কোনো বক্তা নিজের শৈশবের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে কোথায় যেন হারিয়ে গেলেন। আবদুল হামিদ মাহবুব শৈশবে ত্যানা দিয়ে কিংবা কাঁচা বাতাবিলেবু দিয়ে বল বানিয়ে কিভাবে ফুটবল খেলে সময় পার করতেন সেসব কথা বড়ো আকর্ষণীয় করে শোনালেন। উপন্দ্রেকিশোরের একটি তীব্র শ্লেষাত্মেক রাজার গল্প বলতেও ভুললনে না। জসীম মাসুদ ইনিয়ে বিনিয়ে শিশুদের মনের মতো করে অনেক আলাপ গল্পই করলেন যা বড়োদেরও খুব মনে ধরলো।

উপেন্দ্রকিশোর যে শিশু সাহিত্যের ‘আইকন’ তাও সহজ করে বলতে গিয়ে বিশেষ মুনশিয়ানার পরিচয় দিলেন। অনুষ্ঠানের প্রাণভোমরা মায়া ওয়াহেদ শৈশবে প্রকাশিত লেখালেখি শিশুদের জীবনের পথে যে কতটুকু কাজে দেবে সেই প্রসঙ্গে যাকিছু কথা বললেন তা দর্শকশ্রুতামনে রবীন্দ্রনাথের সেই পঙক্তির অনুরণন তুলল- “শুধু তোমার বাণী নয় গো, হে বন্ধু, হে প্রিয়, মাঝে মাঝে প্রাণে তোমার পরশখানি দিয়ো।” 

সভায় আরও যারা রঙ ছড়িয়েছেন তাদের মধ্যে গল্পবলা শিশু তাওফিকা মোজাহিদ, প্রচ্ছদ শিশু বিততি রায় বিদ্যা, কবি পুলক কান্তি ধর, কবি ও প্রকাশক মোজাহিদ আহমদ , শৈশবের বিভাগীয় সম্পাদক শ্বাশতী দাস, আফজাল হোসেন, কলকাতা থেকে হোয়াসঅ্যাপে দেবীস্মিতা দেব, ব্যবস্থানা সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন, মো. সেলিম, শিক্ষক কন্দ্রর্প বিজয় চৌধুরী, মুক্তা রানী গোস্বামী প্রমুখ। 

অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছেন সম্পাদক মহিদুর রহমান। আলাপে আলাপে শৈশব আলাপের আষাঢ়ে বিকালটায় কখন যে সন্ধ্যা নামলো কেউই টের পাননি।  

আইনিউজ/এসডি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়