ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৭ মে ২০২২,   জ্যৈষ্ঠ ৩ ১৪২৯

কামরুল হাসান, মৌলভীবাজার

প্রকাশিত: ২১:৩১, ৫ মে ২০২২
আপডেট: ২১:৪৮, ৫ মে ২০২২

ভোজ্যতেলের কৃত্রিম সংকট তৈরির দায়ে ব্যবসায়ীকে জরিমানা, প্রতিবাদে দোকান বন্ধ ঘোষণা

বিক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা একসাথে জড়ো হয়ে প্রতিবাদ জানান।

বিক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা একসাথে জড়ো হয়ে প্রতিবাদ জানান।

মৌলভীবাজারে ভোজ্য তেলের কৃত্রিম সংকট তৈরি করার দায়ে ব্যবসায়ীকে নগদ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং একজনকে আটক করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের জন্য শহরের সকল মুদির দোকান বন্ধ ঘোষণা করেছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। 

স্থানীয় ব্যবসায়ী ও ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, শহরে ভোজ্য তেলের সংকট চলছে ভোক্তাদের এই অভিযোগ পেয়ে বৃহস্পতিবার (৫ মে) বিকাল ৩ টায় পশ্চিমবাজার এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোস্তাফিজুর রহমান। এসময় সাথে ছিলো পুলিশ ফোর্স।

জানা যায়, শহরে ভোজ্য তেলের কৃত্রিম সংকট চলছে ভোক্তাদের এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পশ্চিমবাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। জব্দকৃত তেল উদ্ধার করে নগদ অর্থ জরিমানা করলে জরিমানার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান দোকানের ব্যবসায়ী। তখন জরিমানার টাকা অনাদায়ে দোকানের ম্যানেজার এনামুল হককে আটক করা হয়।

মোস্তাফিজুর রহমান আই নিউজকে বলেন, ইউনিক এন্টারপ্রাইজের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তারা তেল মজুত রেখে সাধারণ ক্রেতাদের ফিরিয়ে দিচ্ছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা অভিযান পরিচালনা করি। তাদের কাছে জানতে চাই সোয়াবিন তেল আছে কিনা। তখন তারা জানান সোয়াবিন তেল তাদের কাছে নেই। আমরা তাদের স্টোরে গিয়ে সেখানে ৫৪ লিটার তেল পাই।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অবৈধভাবে তেল মজুত করার দায়ে ইউনিক এন্টারপ্রাইজকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে মানবিক দিক বিবেচনা করে সেটা কমিয়ে দশ হাজার জরিমানা, অনাদায়ে সাতদিনের জেল দেওয়া হয়। কিন্তু সেটিও মেনে না নিলে দোকানের ম্যানেজার এনামুল হককে আটক করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৫ মে) রাত ৮টার দিকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোস্তাফিজুর রহমান মুঠোফোনে জানান, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানটি জরিমানার টাকা দিতে গিয়েছেন। টাকা দিয়ে দিলে আটক এনামুল হককে ছেড়ে দেওয়া হবে।

ইউনিক এন্টারপ্রাইজ মালিক সৈয়দ মহিউদ্দিন শাহিন বলেন, আমার প্রতিষ্ঠনে নিয়ম বহির্ভুতভাবে ভ্রাম্যমাণ আদালত নগদ ৫০ হাজার টাকা জরিমান করেছেন। পাঁচ লিটার বোতলের এক কার্টুন এবং এক লিটার পলিপ্যাক তেল তাকে না রাখায় এই জরিমানা করা হয়েছে। ঈদের আগে থেকেই  ভোজ্য তেলের সংকট রয়েছে। আমাদের কাছে পর্যাপ্ত তেল না পাওয়ায় এই জরিমানা করা হয়েছে। 

তিনি বলেন, এর প্রতিবাদ জানিয়ে আমরা শহরের কুসুমবাগ, পশ্চিম বাজার এবং চৌমোহনায় প্রতিবাদ সভা করেছি। এখন অনিদিষ্টকালের জন্য শহরের সকল মুদির দোকান বন্ধ ঘোষণা করেছি।

আইনিউজ/এসডি

আইনিউজ ভিডিও

সিলেট বিভাগের সবচেয়ে বড় এ ঈদগাহে নামাজ পড়বে ১৬ হাজার মানুষ

শহরে বেদে নারীদের চাঁদাবাজি, তাদের লক্ষ্য নিরীহ পথচারী ও যাত্রী

অনুরাধা রায় ও তার শিক্ষার্থীদের কণ্ঠে মুগ্ধতা ছড়ানো ইসলামিক গজল

সৌদি আরবে মেয়েকে নির্যাতনের খবরে মায়ের আহাজারি-কান্না

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়