ঢাকা, শুক্রবার   ২২ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৬ ১৪২৮

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০:৫৫, ২৩ জুলাই ২০২১
আপডেট: ২৩:২৫, ২৩ জুলাই ২০২১

পর্যটকদের ঠেকাতে লাঠি হাতে সুনামগঞ্জের ইউপি সদস্য

লাঠি হাতে ইউপি সদস্য।

লাঠি হাতে ইউপি সদস্য।

লকডাউনে সরকার সব ধরণের পর্যটনস্থল বন্ধ ঘোষণা করেছে। এর প্রেক্ষিতে সারাদেশেই কঠোর অবস্থান নিয়েছে পর্যটন জেলাগুলোর প্রশাসন। কিন্তু সুনামগঞ্জে কিছুতেই যেন পর্যটকদের ঠেকানো যাচ্ছেনা। সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের টাঙ্গুয়ার হাওর এর একটি বড় কারণ।

এছাড়াও প্রতিদিনই নানান বয়সী ও বিভিন্ন স্থানের পর্যটক ও দর্শনার্থীরা আসছেন সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বারেকটিলায়। এবার তাদের আটকাতে লাঠি হাতে নিয়ে দৌড়াতে দেখা গেছে এক ইউপি সদস্যকে।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত ইউপি সদস্য সম্রাট মিয়া। লকডাউনের এই কঠোর সময়েও পর্যটক ঠেকাতে না পেরে তিনি আজ শুক্রবার (২৩ জুলাই) লাঠি হাতে মাঠে নামেন। উপজেলার বারেকটিলায় এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

ইউপি সদস্যের লাঠি হাতে পর্যটকদের তাড়িয়ে দেওয়ার দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে আজকে ভাইরালও হয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পর্যটকদের আনাগোনা লকডাউনের বিধিনিষেধের পরেও কমে নি। বাধ্য হয়ে সম্রাট মিয়া হাতে লাঠি নিয়ে তাদের পর্যটনস্থল থেকে তাড়িয়ে দেন। তাকে এসময় সহায়তা করেছেন একজন গ্রাম পুলিশ। 

সম্রাট মিয়ার তাড়া খাওয়া পর্যটকদের একজন জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য বারেকটিলায় বসতেই মারমুখি হয়ে লাঠি হাতে তেড়ে আসেন। পরে সেখান থেকে উঠে যেতে হয়। তবে তিনি আঘাত করেননি। 

পর্যটকরা জানান, ঈদ উপলক্ষে এখানে ঘুরতে এসেছিলাম। এখন বাড়ি ফিরে যেতে হবে। 

ইউপি সদস্য সম্রাট মিয়া জানান, ঈদ উপলক্ষে পর্যটকদের আনাগোনা বেড়ে যায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও চেয়ারম্যান আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন পর্যটক নিষিদ্ধ করতে। তাই বাধ্য হয়ে লাঠি হাতে নামতে হয়েছিলো। তবে কাউকেই আঘাত করা হয়নি।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, পর্যটকগণ স্বাস্থ্যবিধি বা লকডাউন না মেনেই চলে আসে। মাইকিং করে বারবার তা নিষেধ করা হয়েছে। তাই আগত পর্যটকদের ফিরিয়ে দিতে সম্রাট মিয়াকে বলেছিলাম। 

আইনিউজ/এসডি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়