ঢাকা, রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ২ ১৪২৮

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০:৩৩, ২০ আগস্ট ২০২১
আপডেট: ২১:১৬, ২০ আগস্ট ২০২১

ট্যাকেরঘাটে শহীদ সিরাজের সমাধিতে এমপিসহ নেতাকর্মীদের দোয়া

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ট্যাকেরঘাট সাব সেক্টরে শহীদ হওয়া সিরাজুল ইসলামের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

আজ শুক্রবার (২০ আগস্ট) বিকেলে উপজেলার সীমান্তবর্তী ট্যাকেরঘাটে মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদ সিরাজের সমাধিস্থলে তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে দোয়া পাঠের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ -১ আসনের সাংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন।  

এ সময় অংশগ্রহণ করেন তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অমল কান্তি কর, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রৌজ আলী, তাহিরপুর কয়লা আমদানিকারক সমিতির সভাপতি হাজী আলখাছ উদ্দিন খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন খন্দকার লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন, বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন, উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ আহবায়ক মিলন তালুকদার, বালিজুরি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষা মিয়া,  উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি সুষেন বর্মন, উপজেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি বিল্লাল আমীন, সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন, যুগ্ম আহবায়ক রায়হান উদ্দিন রিপন।

উল্লেখ্য, মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ট্যাকেরঘাট সাব সেক্টরে স্থানীয় কতিপয় রাজাকারদের সহযোগিতায় পাক হানাদার বাহিনীর হাতে সম্মুখযুদ্ধে শহীদ হয়েছিলেন সিরাজুল ইসলাম সিরাজ। 

১৯৭১ সালে স্নাতকে পড়াকালীন সময়ে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে ঘর ছাড়েন সিরাজ। আসামের ইকো ওয়ান সেন্টারে প্রশিক্ষণ শেষে তিনি ৫ নম্বর সেক্টরের বড়ছড়া সাব-সেক্টরের অধীনে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। ১৯৭১ সালের ৭ই আগস্ট সুনামগঞ্জের সাচনা বাজার এবং জামালগঞ্জ থানা থেকে পাকিস্তানীদের বিতাড়িত করার লক্ষ্যে আক্রমণ চালায় একদল মুক্তিযোদ্ধা। তৎকালীন সময়ে পাকিস্তানের ধুসর স্থানীয় কতিপয় রাজাকার বাহিনীর সহযোগিতায় নির্মম বুলেটের আঘাতে শহীদ হন সিরাজুল ইসলাম সিরাজ। 

উল্লেখ থাকে যে, শহীদ সিরাজ হত্যাকান্ডের ঘটনায় ২০১৯ সালে তাহিরপুর উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা সুজাফর আলী বাদী হয়ে মুক্তিযোদ্ধ চলাকালীন হত্যা,নারী নির্যাতন, অনিষ্ট সাধন ও যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনে স্থানীয় কতিপয় রাজাকারের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে  আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালে তদন্তনাধীন রয়েছে। 

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর খোকন বলেন, শহীদ সিরাজের নির্মম হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। আমাদের দাবি মামলাটি দ্রুত তদন্ত করে শহীদ সিরাজ হত্যায় জড়িতদের দ্রুত  আইনের আওতায় আনা হউক।

আইনিউজ/রাজন চন্দ/এসডি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়