ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২২,   মাঘ ১৪ ১৪২৮

তাহিরপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২২:২৭, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

জামায়াত পরিবারে নৌকা : আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতার হতাশা

আবুল হোসেন খান

আবুল হোসেন খান

সিলেট অঞ্চলে শীর্ষ সারির এক জামায়াত নেতার ভাগিনাকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দেয়ার অভিযোগ এনে ক্ষোভ, হতাশা আর অভিমানে রাজনীতি থেকে অবসর নিতে চাইছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বর্ষীয়ান নেতা আবুল হোসেন খান। কিন্তু তার কর্মী-সমর্থকরা তাকে অবসর দিতে চাচ্ছেন না।

আসন্ন সপ্তম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নেই ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক দিয়ে প্রার্থী ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

প্রার্থী তালিকায় সিলেটের শীর্ষ জামায়াত নেতা মাওলানা শামসুজ্জামান এর ভাগিনা আবুল খায়েরকে উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন- নৌকার মনোনয়ন পেলেন জামায়াত নেতার ভাগিনা!

তৃণমূল আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আবুল খয়ের এর নাম না থাকা সত্ত্বেও এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নিবেদিত ও নির্যাতিত ত্যাগী অনেক নেতাদের পাশ কাটিয়ে জামায়াতের শীর্ষ নেতার পরিবারে নৌকা দেয়ায় চরম ক্ষোভ আর অভিমান নিয়ে রাজনীতি থেকে অবসর নিতে চাচ্ছে তাহিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের  সভাপতি ও উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চার বারের চেয়ারম্যান জননেতা আবুল হোসেন খান। 

জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হোসেন খান এমন অভিমান করলেও রাজনীতি থেকে অবসর দিতে চাচ্ছে না এ নেতার হাজার হাজার কর্মী সমর্থকরা।

উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম বলেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের মিটিংয়ে ওয়ার্ড কমিটির সকল তৃণমূল নেতৃবৃন্দের সমর্থনে আবুল হোসেন খান এর একক নাম প্রস্তাব করে পাঠানো হয়েছিলো। কিন্তু নাম না থাকা ও যার তৃণমূলে কোনো অবস্থান নেই সেই ব্যক্তিকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দেয়ায় সকল নেতাকর্মীদের মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  এখানে নৌকার ভরাডুবি অনেকটাই নিশ্চিত।

আরও পড়ুন- তিন চাকার প্যাডেলেই চলেছে জীবন

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আবুল হোসেন খান বলেন, সুদীর্ঘ পঞ্চাশ বছরের আমার রাজনৈতিক জীবনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব  ও বর্তমানে সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। যুগ যুগ ধরে আমার অনেক শ্রম ঘামে উপজেলার তৃণমূল পর্যায়ে আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করেছি। শুধুমাত্র আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করতে গিয়ে বার বার জামায়াত বিএনপি দ্বারা মোট ২৭ টি মিথ্যে মামলার শিকার হয়েছি। শুধুমাত্র ওয়ান এলিভেনের সময় একনাগাড়ে ৭ মাস জেলে থাকা সহ বিভিন্ন ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় বছরের পর বছর কারাবরণ করেছি। কিন্তু শেষ জীবনে এসে আমার আওয়ামী লীগে থাকা কিছু খন্দকার মোস্তাক প্রজন্মের ষড়যন্ত্র ও মনোনয়ন বাণিজ্যের কাছে আমি অবমূল্যায়িত হয়েছি। তাই রাজনীতি থেকে এখন অবসর নেয়ার চেষ্টা করছি।

আইনিউজ/রাজন চন্দ/এসডিপি 

আইনিউজ ভিডিও

ওমিক্রন এক চেনা উদ্বেগ, করোনাভাইরাসের `ভয়াবহ` ভ্যারিয়েন্ট

যেসব দেশে যেতে বাংলাদেশিদের লাগবে না ভিসা

সাজেক: কখন-কীভাবে যাবেন, কী করবেন? জেনে নিন বিস্তারিত

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়