ঢাকা, মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১,   অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৮

রাজন চন্দ, তাহিরপুর

প্রকাশিত: ১৭:১১, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
আপডেট: ১৭:৪২, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

হুমকির মুখে টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য

পর্যটকদের ব্যবহৃত বর্জ্য সামগ্রীতে হাওরের পরিবেশ বিপর্যস্ত

পর্যটকদের ব্যবহৃত বর্জ্য সামগ্রীতে হাওরের পরিবেশ বিপর্যস্ত

নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ শিকার, শীতকালে ফাঁদ পেতে অতিথি পাখি নির্বিচারে হত্যা, সারিবদ্ধ হিজল-করচ গাছ কেটে উজাড়, ইঞ্জিনচালিত নৌকায় হাওরে অবাধ বিচরণ ও পর্যটকদের ব্যবহৃত প্লাস্টিক বর্জ্য সামগ্রী ফেলে হাওরের পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে দিন দিন হুমকির মুখে পড়ছে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য। 

স্থানীয় সচেতন মহলের দাবি, টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় এখনই কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। নয়তো অচিরেই ধ্বংস হবে টাঙ্গুয়ার হাওরের সৌন্দর্য্য ও জীববৈচিত্র্য। 

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা হাজারো পর্যটক প্রথমেই ভাড়ায় চালিত ইঞ্জিন নৌকায় টাঙ্গুয়ার হাওরে প্রবেশ করেন। হাওরে গিয়ে পর্যটকদের ব্যবহৃত কোমল পানীয়সহ পানির বোতল, ওয়ান টাইম গ্লাস ও থালা, চিপস-চানাচুরের প্যাকেটসহ অসংখ্য প্লাস্টিক সামগ্রী নির্দ্বিধায় হাওরের পানিতে ফেলে দিচ্ছেন। 

জ্বালানির জন্য হিজল-করছ গাছ নিধন বাড়ছে 

অপরদিকে টাঙ্গুয়ার হাওর পাড়ের সংলগ্ন বিভিন্ন গ্রামের লোকজন রাতের আঁধারে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরছেন। কেউ আবার জ্বালানির জন্য হিজল-করছ গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছেন। অনেকেই আবার শীতকালে আসা অতিথি পাখি শিকার করে বাজারে বিক্রির মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করেন। এসব নানামুখী কারণে দিন দিন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এগিয়ে যাচ্ছে টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য। 

টাঙ্গুয়ার হাওর ব্যাবস্থাপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আহমেদ কবির বলেন, আমাদের ব্যবস্থাপনা কমিটির লোকজনকে ফাঁকি দিয়েই হাওরের মাছ ও পাখি শিকার করা হয়। এ ব্যাপারে প্রশাসনের লোকজন অনেক সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জাল ও পাখি শিকারিদের জরিমানা করেন।

টাঙ্গুয়ার হাওর পাড়ের বাসিন্দা শিক্ষক নীহার রঞ্জন তালুকদার জানান, ছোটবেলায় টাঙ্গুয়ার হাওরে অনেক বড় বড় মাছ দেখতাম, শীতকালে পাখির কলতানে ঘুম ভাঙলেও বর্তমানে এসবের কিছুই এখন নেই।  

বিশেষজ্ঞদের মতে টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতনতা প্রয়োজন 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে টাঙ্গুয়ার হাওরের এক জেলে জানান, অন্য কোনো কর্মসংস্থান না থাকায় আমরা টাঙ্গুয়ার হাওরে মাছ ধরি, শীতের সময় পাখি শিকার করে তা বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করি। 

তাহিরপুর উপজেলা 'হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও' আন্দোলনের আহবায়ক গোলাম সারোয়ার লিটন বলেন, নানামুখী কারণে দিন দিন টাঙ্গুয়ার হাওরের প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে। জীববৈচিত্র্য রক্ষায় এখনই কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়াসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন।  

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো রায়হান কবির বলেন, টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এছাড়াও স্থানীয় ব্যবস্থাপনা কমিটির মাধ্যমে হাওরের বিভিন্ন জায়গায় টহল দেয়া হয়। খুব শীঘ্রই টাঙ্গুয়ার হাওরের জীববৈচিত্র্য রক্ষায় কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়া হবে। 

আইনিউজ/এসডিপি 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়