ঢাকা, রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ২ ১৪২৮

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৭:০৭, ১ জুন ২০২০
আপডেট: ১৬:২৮, ১ জুন ২০২০

সিলেট বোর্ডের সেরা ১০ স্কুল

রোববার সারাদেশে প্রকাশিত হয় ২০২০ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল।

রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই পরীক্ষার ফল প্রকাশের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।তার আগে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির হাতে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন বোর্ডগুলোর চেয়ারম্যানেরা।

এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন পরীক্ষার্থী।এই পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন।এর মধ্যে পাস করেছে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন।রোববার বেলা ১১ টার পরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে এসব তথ্য জানান শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

নয়টি সাধারণ বোর্ডে পাসের হার ৮৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ,মাদ্রাসা বোর্ডে ৮২ দশমিক ৫১ শতাংশ এবং কারিগরি বোর্ডের ৭১ দশমিক ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে।এবারও পাসের হারে এগিয়ে আছে ছাত্রীরা। ছাত্রদের পাসের হার যেখানে ৮১ দশমিক ৬৩ শতাংশ,সেখানে ছাত্রীদের মধ্যে ৮৪ দশমিক ১০ শতাংশ পাস করেছে।

সিলেট বোর্ডের অধীনে এবার এসএসসিতে ৯১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক লাখ ১৬ হাজার ১০৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। পাস করেছেন ৯১ হাজার ৪৮০ জন। এদের মধ্যে ছেলে ৩৯ হাজার ৫০৪ জন এবং মেয়ে ৫১ হাজার ৯৭৬ জন।

এবার সিলেট বোর্ডের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়- সিলেট জেলার সাতটি স্কুল রয়েছে সেরা দশে। এই তালিকায় মৌলভীবাজারের দুটি ও হবিগঞ্জের একটি স্কুলের নামও ওঠে এসেছে।তবে নেই সুনামগঞ্জের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

সিলেট বোর্ডের শীর্ষস্থানে সিলেট জেলার ব্লু বার্ড হাই স্কুল এন্ড কলেজ।শতভাগ পাস করা এই প্রতিষ্ঠানে জিপিএ-৫ পেয়েছে সর্বোচ্চ ২১৪ জন। সিলেট বোর্ডের ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ব্লু বার্ড হাই স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২৭৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন সবাই।

ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়- বোর্ডে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। এবারের এসএসসি পরীক্ষায় ২৬৬ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০৭ জন। শতভাগ পাসের রেকর্ডও করেছে এই স্কুলটি।

তৃতীয় স্থানে সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২৪৯ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে ২৪৬ জন পাস করেছে। স্কুলটিতে পাসের হার ৯৮ দশমিক ৮০ শতাংশ।জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪৬ জন।

সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ৩৩৬ জন ছাত্রী অংশ নিয়ে পাস করেছে ৩২১ জন।জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৩৯ জন।পাসের হার ৯৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ। ফলাফলে বিদ্যালয়টি বিভাগে চতুর্থ স্থানে আছে।

হবিগঞ্জের একমাত্র প্রতিষ্ঠান হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ফলাফলে বোর্ডের সেরা দশের তালিকার পঞ্চম স্থানে আছে।এ স্কুল থেকে ২৫৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ২৪৯ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০৫ জন। পাসের হার ৯৮ দশমিক ০৩ শতাংশ।

মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২৩৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাস করেছে ২৩৫ জন।পাসের হার ৯৯ দশমিক ১৬ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭৪ জন। ফলাফলে জেলার এই স্কুলটি রয়েছে ষষ্ঠ  স্থানে।

সিলেট ক্যাডেট কলেজ গতবারের মতো এবারও অক্ষুণ্ণ রেখেছে শতভাগ পাসের রেকর্ড। ৫৪ জন পরীক্ষার্থী এবারের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৫৪ জন এবং জিপিএ-৫ ও পেয়েছে ৫৪ জনই। ফলাফলে তারা সপ্তম স্থান অধিকার করেছে।

অষ্টম স্থানে থাকা জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড হাই স্কুল থেকে ১১১ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে শতভাগ পাস।আর জিপিএ-৫ পেয়েছে মোট ৫০ জন শিক্ষার্থী।

২৬৩ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে ২৫৮ জন পাস করে শাহজালাল জামেয়া ইসলামিয়া স্কুল এন্ড কলেজ রয়েছে  নবম স্থানে।জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৯ জন ও পাসের হার ৯৮ দশমিক ১০ শতাংশ।

মৌলভীবাজারের জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার দি বার্ডস রেসিডেনশিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ১১২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৭ জন।পাস করেছে ১১০ জন ও পাসের হার ৯৮ দশমিক ২১ শতাংশ।স্কুলটি সেরা দশের সর্বশেষ স্থানে রয়েছে।

উল্লেখ্য- পরীক্ষার ফলাফল বিশ্লেষণ করে বিভাগের সেরা দশটি স্কুল বের করা হয়েছে। এটা সিলেট শিক্ষা বোর্ডের অফিসিয়াল কোনো তালিকা নয়। 

এদিকে সিলেট বোর্ডের মধ্যে সিলেট জেলায় পাস করেছে ৮০ দশমিক ৯৬ শতাংশ শিক্ষার্থী, যা বোর্ডে সর্বোচ্চ।এর মধ্যে মেয়েদের হার ৮০ দশমিক ৪২ শতাংশ ও ছেলেদের হার ৮১ দশমিক ৬৬ শতাংশ। অপরদিকে মৌলভীবাজার জেলায় পাস করেছে ৮০ দশমিক ৮৮ শতাংশ শিক্ষার্থী। তাদের মধ্যে ৮২ দশমিক ৭৫ শতাংশ ছেলে ও ৭৯ দশমিক ৬১ শতাংশ মেয়ে।

সুনামগঞ্জ জেলায় পাসের হার ৭৮ দশমিক ৬০ শতাংশ।এর মধ্যে ছেলে ৭৭ দশমিক ৭৮ শতাংশ ও মেয়ে ৭৯ দশমিক ২৬ শতাংশ।হবিগঞ্জ জেলায় পাস করেছে ৭২ দশমিক ৭৩ শতাংশ শিক্ষার্থী,যা সিলেট বোর্ডে সর্বনিম্ন। এদের মধ্যে ছেলে ৭২ দশমিক ৭৯ শতাংশ এবং মেয়ে ৭২ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

সিলেট জেলায় জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ হাজার ১৮০ জন শিক্ষার্থী।এর মধ্যে ছেলে ১ হাজার ৫৩ জন ও মেয়ে ১ হাজার ১২৭ জন। হবিগঞ্জের ৬০৫ শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছেন।এদের মধ্যে ২৯০ জন ছেলে এবং ৩১৫ জন মেয়ে।

মৌলভীবাজারে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১০৬৫ জন।এর মধ্যে ৫২৭ জন ছেলে এবং ৫৩৮ জন মেয়ে।সুনামগঞ্জ জেলায় জিপিএ-৫ পেয়েছেন মাত্র ৪১৩ জন।এর মধ্যে ২১১ জন ছেলে এবং ২০২ জন মেয়ে।

বিজ্ঞান বিভাগ থেকে সিলেট বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৯৩২ জন, মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৭০ জন এবং ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬১ জন।

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়