ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২২,   মাঘ ১৩ ১৪২৮

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭:২৪, ২৬ নভেম্বর ২০২১
আপডেট: ১৭:২৫, ২৬ নভেম্বর ২০২১

মুশফিক-লিটনের ব্যাটে ভর করে টেস্টের প্রথম দিন বাংলাদেশের 

দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের সফরকারী পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। দিনের প্রথম সেশনটা পাকিস্তানি বোলারদের সামনে পাত্তাই পায়নি বাংলাদেশের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানরা। দলীয় পঞ্চাশের আগেই সাজঘরে ফিরে যান প্রথম চার ব্যাটসম্যান। দিনের বাকি অংশ দারুণভাবে রাঙিয়েছে স্বাগতিকরা। যার মূল কারিগর মুশফিকুর রহিম ও লিটন কুমার দাস।

জাতীয় দলের সাবেক ও বর্তমান উইকেটরক্ষকের ব্যাটে ভর করে দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ২৫৩ রান। শেষ বিকেলে আলোকস্বল্পতার কারণে নির্ধারিত ৯০ ওভারের পাঁচ ওভার আগেই দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করেছেন আম্পায়াররা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগেই ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন লিটন। ক্যারিয়ারের ২৬তম টেস্টের ৪৩তম ইনিংসে তিন অঙ্কে পৌঁছতে তিনি খেলেছেন ১৯৯টি বল। যেখানে ছিল ১০ চার ও একটি ছয়ের মার। দিন শেষে লিটন অপরাজিত রয়েছেন ২২৫ বলে ১১৩ রান করে।

আরও পড়ুন- লিটনের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি

অন্যদিকে লিটনের এক ওভার আগে উইকেটে যাওয়া মুশফিক অপেক্ষায় রয়েছেন ক্যারিয়ারের অষ্টম টেস্ট সেঞ্চুরির। তিনি ২৪তম ফিফটি করে অপরাজিত রয়েছেন ৮২ রানে। যা করতে মুশফিক খেলেছেন ১৯০ বল। তার ইনিংসে রয়েছে ১০টি চারের মার। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একাগ্রচিত্তে ব্যাটিং করেছেন মি. ডিপেন্ডেবল।

সাগরিকায় টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক। তবে তার সিদ্ধান্ত ভুল প্রমাণেই যেন মাঠে নামেন টাইগার ব্যাটাররা। উদ্বোধনী জুটি টেকে মাত্র ২৭ বল। ব্যক্তিগত ১৪ রানে ফেরেন সাইফ হাসান।

অপর ওপেনার সাদমান ইসলামও ১৪ রানের বেশি করতে পারেননি। এই ধারা বজায় রাখতেই যেন ১৪ করে সাজঘরে ফেরেন তিনে নামা নাজমুল হোসেন শান্ত। অবশ্য তার আগেই আউট হওয়া অধিনায়ক মুমিনুল হক করেন ৬ রান।

আরও পড়ুন- ম্যারাডোনা চলে যাওয়ার এক বছর

মাত্র ৪৯ রানে ৪ উইকেটে হারিয়ে অল্পেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়ে বাংলাদেশ। এরপর প্রতিরোধ গড়ে তোলেন লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম। দুজনের ব্যাটে ভর করে আর কোনো উইকেট না হারিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যায় টাইগাররা।

চার উইকেটে ৬৯ রান নিয়ে দ্বিতীয় সেশন শুরু করে বাংলাদেশ। শুরু থেকেই দেখে শুনে খেলতে থাকেন লিটন ও মুশফিক। নোমান আলির বলে চার হাঁকিয়ে ৯৫ বলে অর্ধশতক পূরণ করেন লিটন দাস। সাদা পোশাকের ক্রিকেটে এটি ছিল তার দশম ফিফটি।

আরও পড়ুন- আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট থেকে অবসরের ঘোষণা মাহমুদউল্লাহর

এর কিছু পড়ে ১০৮ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন মুশফিকুর রহিম। দ্বিতীয় সেশনে অবিচ্ছেদ্য থেকে দুজনে যোগ করেন ১০২ রান। একইসঙ্গে ইঙ্গিত দেন পাল্টা আক্রমণের।

চা বিরতির আগে যেখানে থেমেছিলেন, সেখান থেকেই তৃতীয় সেশন শুরু করেন লিটন ও মুশফিক। দারুণ খেলতে থাকা লিটন এরই মধ্যে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পান। নোমান আলির বলে সিঙ্গেল নিয়ে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি।

পাকিস্তানের হয়ে শাহিন শাহ আফ্রিদি, হাসান আলী, ফাহিম আশরাফ ও সাজিদ খান প্রত্যেকেই একটি করে উইকেট শিকার করেন। 

আইনিউজ/এসডিপি 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়