ঢাকা, শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১ ১৪২৮

তোফায়েল পাপ্পু (দুবাই থেকে)

প্রকাশিত: ১৪:১৯, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
আপডেট: ১৮:৩০, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

প্রবাসীদের জন্য সুখবর দিলো আরব আমিরাত

পঞ্চাশ বছরের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে শ্রম বাজারের প্রতিযোগিতা ও দক্ষতার বিকাশ এবং বিদেশী শ্রমিকদের নিরাপত্তার জন্য ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সহ বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিসায় ব্যাপক পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। 

আরব আমিরাতের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম খালিজ টাইমস এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে দেশটিতে বিদেশি শ্রমিকদের মধ্যে কেউ যদি চাকরি হারায় বা অব্যাহতি নিলে সর্বোচ্চ ৩০ দিনের মধ্যে নতুন ওয়ার্ক পারমিট কিংবা দেশ ত্যাগের বিধান থাকলেও গ্রেস পিরিয়ড বা ভিসা স্ট্যাটাস পরিবর্তনের সংস্কৃতি আইনে এখন থেকে ৯০ দিন থেকে ১৮০ দিন পর্যন্ত করা হয়েছে। 

অথবা যদি কোন প্রবাসী চাকরি হারায় তাহলে ওই প্রবাসী পূর্বের আইন অনুযায়ী এক মাস সময় পেতো নতুন কাজে যোগদান করার জন্য কিন্তু এই নিয়ম বা আইন এখন আর থাকছে না। এখন থেকে যদি কোন প্রবাসী চাকরি হারায় বা কাজ থেকে অব্যাহতি নেয় তাহলে প্রবাসীদের ভিসা অনুযায়ী ভিসা স্ট্যাটাস পরিবর্তন করার জন্য বা আরব আমিরাত ত্যাগ করার জন্য ৩ মাস থেকে ৬ মাস সময় পাবেন।

দেশটির সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে প্রজেক্ট অব দ্যা ফিফটি এর অংশ হিসেবে এই পরিবর্তন আনা হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে এন্ট্রি এবং রেসিডেনসি সিস্টেমের পূর্ণ গঠন। কর্মী বিনোয়োগ, উদ্যোক্তা ও শিক্ষার্থীদের জন্য একটি নিরাপদ ও আদর্শ গন্তব্য হিসেবে অবস্থান নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে
আধুনিকায়ন করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, যে দেশটির ভিসা পদ্ধতিতে উল্লেখযোগ্য যেসব পরিবর্তন আনা হচ্ছে সেগুলো হচ্ছে বাণিজ্যিক ভ্রমণের অনুমতি ৩ মাস থেকে বাড়িয়ে ৬ পর্যন্ত মাস করা হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের অধীনে পিতা- মাতাকে সরাসরি স্পন্সর করা যাবে। মানবিক ক্ষেত্রে রেসিডেন্সি ১ বছর সময় বৃদ্ধি পিতা-মাতার বসবাসের ক্ষেত্রে সন্তানদের স্পন্সরের বয়স ১৮ থেকে ২৫ বছর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে।

চাকরি থেকে অব্যাহতি কিংবা বরখাস্ত হলে গ্রেস পিরিয়ড বা ভিসা স্ট্যাটাস পরিবর্তন বা নতুন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা লাগানোর জন্য ৯০ দিন থেকে সর্বোচ্চ ১৮০ দিন পর্যন্ত সময় পাবেন প্রবাসীরা। 

এছাড়া দেশটির প্রতিযোগিতামূলক সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য আগামী ৯ বছরের মধ্যে ১৫০ মিলিয়ন ডলার সরাসরি বিদেশি বিনোয়োগের জন্য ৫০টি নতুন অর্থনৈতিক উদ্যোগ চালু করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। যা সংযুক্ত আরব আমিরাতকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বের সামনে আরও একবার পরিচিত করে তুলবে।

আইনিউজ/তোফায়েল পাপ্পু/এসডিপি 

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়