ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৩ মে ২০২১,   বৈশাখ ৩০ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩:৩৩, ১৭ এপ্রিল ২০২১
আপডেট: ২৩:৩৯, ১৭ এপ্রিল ২০২১

প্রতীকী কুম্ভমেলা উদযাপন করতে নরেন্দ্র মোদির অনুরোধ

কুম্ভমেলা

কুম্ভমেলা

ভারতে ব্যাপকহারে বাড়ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। ঠিক এমন সময় চলছে হরিদ্বারের কুম্ভমেলা। মেলায় কেউ মানছে না স্বাস্থ্যবিধি, মুখে নেই মাস্ক। এতে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলছে। তাই এবার কুম্ভমেলার রাশ টানতে অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

শনিবার হরিদ্বারের জুনা আখড়ার স্বামী অবধেশানন্দ গিরির সঙ্গে কথা বলে প্রধানমন্ত্রী জানান, সাধু সন্তদের প্রতীকী উদযাপনে তিনি অনুরোধ করেছেন। বলেছেন, ‘করোনা মোকাবিলায় তাঁদের সহযোগিতা প্রার্থনা করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী মোদির অনুরোধে সাড়া দিয়েছেন স্বামী অবধেশানন্দ গিরি। পাল্টা অনুরোধ জানিয়ে তিনি সবাইকে অনুরোধ করেছেন, বিপুলসংখ্যায় সাধু সন্ত ও সাধারণ মানুষ আর যেন হরিদ্বারে স্নান করতে না আসেন। তবু যারা আসবেন, তারা যেন কোভিডবিধি কঠোরভাবে মেনে চলেন।

হিমালয়ের কোল ঘেঁষে উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারে প্রতি ১২ বছর পর  পর আয়োজিত হয় এই কুম্ভ মেলা। যাতে দেশ-বিদেশ থেকে হিন্দু সম্প্রদায়ের অসংখ্য মানুষ গঙ্গাস্নান করতে মেলায় আসেন। এবারও ভিড় জমেছে সেখানে। কিন্তু করোনার স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। ফলে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে।

কোভিড সত্ত্বেও এত দিন ধরে কেন্দ্র বা বিজেপি–শাসিত উত্তরাখন্ডের রাজ্য সরকারের কেউই কুম্ভমেলায় লাখ লাখ মানুষের সমাবেশে বাধা দেননি। বরং উত্তরাখন্ডের মুখ্যমন্ত্রী তীর্থ সিং রাওয়াত যুক্তি দেখিয়ে ছিলেন, খোলা আকাশের নিচে পুণ্য সলিলা গঙ্গা স্নানে ভয়ের কিছু নেই। তা ছাড়া গঙ্গার পুণ্য প্রবাহে করোনা ভেসে যাবে।

মুম্বাইয়ের শিবসেনা নেত্রী এবং বৃহন্মুম্বাই পুরসভার মেয়র কিশোরী পেডনেকর ক্ষুব্ধভাবে বলেছেন, পুণ্যার্থীরা কুম্ভের প্রসাদ হিসেবে করোনা সংক্রমণ উপহার দিতে চলেছেন। হরিদ্বারফেরত মানুষদের মুম্বাইয়ে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন করার কথা ভাবা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ২ লাখ ৩৪ হাজার জনের। এ অবস্থায় ল্যানসেট কোভিড-১৯ কমিশনের ইন্ডিয়া টাস্কফোর্স আগামী দুই মাস বদ্ধ স্থানে সব ধরনের সমাবেশ বন্ধ রাখার পরামর্শ দিয়েছে।

আইনিউজ/এসডিপি

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়