ঢাকা, শুক্রবার   ২২ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৭ ১৪২৮

খোকন থৌনাউজাম

প্রকাশিত: ১৯:৫৭, ৩১ আগস্ট ২০২১
আপডেট: ২২:৫৯, ৩১ আগস্ট ২০২১

মানুষের তত্ত্বাবধানে ফুটলো বিষধর গোখরার ১৪ ছানা, ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে প্রকৃতিতে

বিষধর গোখরা সাপের ডিম থেকে বাচ্চা ফুটেছে মানুষের তত্ত্বাবধানে। পরে তা ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে প্রকৃতিতে। ঘটনাটি বাংলাদেশের জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ মৌলভীবাজার জেলার।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে অবমুক্ত করা হয়েছে গোখরা /পদ্মগোখরার ১৪টি ছানা।

গত ১৪ জুলাই কমলগঞ্জ উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের এক গৃহস্থের গোয়ালঘর থেকে একটি পূর্ণ বয়স্ক গোখরা (monocled cobra) ও ১৫টি ডিম উদ্ধার করা হয়। বন বিভাগের সহযোগিতায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন Stand For Our Endangered Wildlife (টিম S E W) ও বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন যৌথ উদ্যোগে গোখরা সাপ ও ডিম উদ্ধার করে।

উদ্ধার শেষে সেদিনই লাউয়াছড়া বনে সাপটি অবমুক্ত করা হয়। ডিমগুলো কৃত্রিমভাবে ফোটানোর উদ্যোগ নেয় বনবিভাগ। গত ২৮ আগস্ট ১৪ টি ডিম ফুটে বাচ্চা বের হয়। 

আজ মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে লাউয়াছড়া বনে বাচ্চাগুলি অবমুক্ত করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বনবিভাগের এসিএফ শ্যামল মিত্র, রেঞ্জ অফিসার শহিদুল আলম, টিম SEW এবং বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের সদস্যরা৷

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন- গোখরা সাপের ডিম কৃত্রিম উপায়ে সফলভাবে ফোটানোর ঘটনা সিলেট বিভাগে এটাই প্রথম৷ বনবিভাগের শ্রীমঙ্গল ওয়াইল্ডলাইফ রেঞ্জের কর্মী এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন স্ট্যান্ড ফর আওয়ার এন্ডেঞ্জার্ড ওয়াইল্ডলাইফকে (টিম SEW) ধন্যবাদ জানিয়ে বন্যপ্রাণী রক্ষা এবং সংরক্ষণে স্বেচ্ছাসেবী দল গুলির স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণকে তিনি একটি ইতিবাচক বলে মন্তব্য করেন৷

গোখরা বা পদ্মগোখরাকে অঞ্চল ভেদে গোক্ষুর গোখরাও বলা হয়ে থাকে৷  

কেন নাম গোক্ষুর গোখরা

ফণার পিছনে গরুর ক্ষুরের মত দাগ থাকে বলে বাংলায় গোক্ষুর নামটি এসেছে। অন্যদিকে ইংরেজিতে monocled অর্থ হল একচোখা, সাপটির ফণার পিছনে গোল দাগ থাকে যা দেখতে একচোখা চশমার মত লাগে তাই এর ইংরেজি নাম monocled cobra।

এটি গোখরা প্রজাতির একটি সাপ যা দক্ষিণ এবং দক্ষিণপূর্ব এশিয়া দেখা যায়। এটিকে আইইউসিএন কর্তৃক ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

এরা নিশাচর। মানুষের বসতবাড়ির আশেপাশে, চাষের জমি, বনাঞ্চল বা ধানক্ষেতের আশেপাশের ইদুরের গর্তে বা বড় গাছের গুড়ির গর্তে ইদূর আছে এমন জায়গায় থাকতে ভালবাসে। শিশু গোক্ষুর পোকা মাকড় এবং বড় গোক্ষুর ইদুর, ব্যাঙ, মাছ শিকার করে৷ ভয় পেলে বা মানুষের উপস্থিতিতে সচরাচর এরা পালিয়ে যায়৷ তবে বিপদে পড়লে এরা ফণা তোলে ফোঁস ফোঁস শব্দ করে ভয় দেখাতে থাকে এবং পালানোর পথ না পেলে ছোবল দিতে আসে৷ এদের ছোবল প্রাণঘাতী।

আইনিউজের ভিডিওতে দেখুন এ বিষয়ে খবর-

Green Tea
সর্বশেষ
জনপ্রিয়